চারঘাটে সহিংস ঘটনায় উত্তেজনা, আটক ৪

প্রকাশিত: জানুয়ারি ১৯, ২০২০; সময়: ৭:২৭ অপরাহ্ণ |

নিজস্ব প্রতিবেদক, চারঘাট : রাজশাহীর চারঘাটে গত শুক্রবার তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ঘটে যাওয়া মারপিটে একজন আহত হয়েছেন। উক্ত ঘটনাটিকে কেন্দ্র করে শনিবার দিনভর চারঘাটে চাপা উত্তেজনা বিরাজ করছিল। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে সারাদিন চারঘাট বাজারে পুলিশ মোতায়েন ছিল।

এদিকে গোপালপুর গ্রামের শুকটার ছেলে মাছ ব্যবসায়ী রেন্টু (৪০) চারঘাট বাজার থেকে প্রায় রাত ৮টার দিকে বাড়ি ফেরার পথে রাস্তার মাঝে প্রতিপক্ষের লোকজন ধারালো অস্ত্র দিয়ে তাকে আঘাত করে এবং তার দুই পায়ের রগ কেটে পালিয়ে যায়।

এসময় তার চিৎকারে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেকে।্র নিয়ে যায়। সংবাদ পেয়ে আহত রেন্টুর লোকজন হাসপাতালে ছুটে আসেন। তার অবস্থা আশংকাজনক দেখে কর্তব্যরত ডাক্তার সাথে সাথে তাকে রামেক হাসপাতালে প্রেরণ করে।

এঘটনায় আহত রেন্টুর ভাই রতন আলী বাদী হয়ে মেরামতপুর গ্রামের মৃত ইলু মন্ডলের ছেলে ইয়াজ উদ্দিনকে প্রধান আসামী করে ১৫জনের বিরুদ্ধে চারঘাট মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

ঐ রাতেই মডেল থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে প্রধান আসামী ইয়াজ উদ্দিনসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করে রবিবার আদালতের মাধ্যমে আসামীদের জেল হাজতে প্রেরণ করে।

উল্লেখ্য শুক্রবার সন্ধ্যায় চারঘাট বাজারে মটরসাইকেল ও মহিষের গাড়িতে ধাক্কা লাগাকে কেন্দ্র করে উভয়ের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে হাতাহাতি ও ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।

ঐ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মেরামতপুর গ্রামের মৃত ইলু মন্ডলের ছেলে ইয়াজ উদ্দিন বাদী হয়ে মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের কওে এবং ঐ রাতেই থানা পুলিশ ঘটনার সাথে জড়িত প্রধান আসামী শুকটাকে গ্রেফতার কওে জেল হাজতে প্রেরণ করে। তারই জের ধরে গত দুইদিনে চারঘাট এলাকায় থমথমেভাব বিরাজ করছে।

চারঘাট মডেল থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) আনোয়ার হোসেন বলেন,উভয়পক্ষে পৃথক পৃথক দুটি মামলা দায়ের হয়েছে। উভয়পক্ষের ৪জনকে আটক করে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে এবং অন্যান্য আসামীদের গ্রেপ্তারের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। তবে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে বলে তিনি জানান।

পদ্মাটাইমস ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
topউপরে