সিরাজগঞ্জে লেভেল ক্রসিংয়ে নেই কোন গেট ম্যান

প্রকাশিত: জানুয়ারি ২১, ২০২০; সময়: ৬:৪৪ অপরাহ্ণ |
সিরাজগঞ্জে লেভেল ক্রসিংয়ে নেই কোন গেট ম্যান

নিজস্ব প্রতিবেদক, জয়পুরহাট : জয়পুরহাটের আক্কেলপুর উপজেলার জামালগঞ্জ রেল ষ্টেশনের মাতাপুর এলাকায় লেভেল ক্রসিংটি এক বছর আগে পূর্ণ নির্মাণ করে রেল কর্তৃপক্ষ। সেখানে নতুন গেট ব্যারিয়ারও বসানো হয়েছে। আবার গেটম্যানের বিশ্রামাগার তৈরি হয়েছে। কিন্তু সেখানে কোন গেটম্যান না থাকায় প্রায় সময় প্রাণ হানির মতো ঘটনা ঘটেই যাচ্ছে।

মঙ্গলবার ট্রেনের ধাক্কায় মোকলেছার রহমান (৩৬) নামে এক কলা ব্যবসায়ী নিহত হয়েছে। সে বগুড়া জেলার আদমদীঘি উপজেলার মাতাপুর গ্রামের বাসিন্দা।

মঙ্গলবার সকালে উপজেলার রুকিন্দীপুর ইউনিয়নের মাতাপুর লেভেল ক্রসিংয়ে এঘটনা ঘটে। রক্ষিত ওই লেভেল ক্রসিংয়ে কোন গেটম্যান না থাকার কারনেই ওই দূঘটনা ঘটেছে দ্বাবী স্থানীয়দের।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, মাতাপুর লেভেল ক্রসিংয়ে আগে কোন গেট ব্যারিয়ার ছিল না। গত এক বছর আগে ওই গেটে নতুন করে গেট ব্যারিয়ার বসায় রেল কর্তৃপক্ষ। সেখানে গেট ম্যানের বিশ্রামাগারও তৈরি করা হয়। তবে ওই গেটে ট্রেন আসা যাওয়ার সময় গেট ব্যারিয়ার নামানো এবং উঠানোর জন্য রেল কর্তৃপক্ষের কোন গেট ম্যান নেই। এতে প্রায় সময় ঘটত প্রাণ হানির মতো দূর্ঘটনা।

মঙ্গলবার সকালে জামালগঞ্জ বাজার থেকে কলা কিনে সেগুলো শ্যালো মেশিন চালিত (অবৈধ) ভটভটিতে বোঝায় করে নিয়ে আসছিলেন মোকলেছার রহমান ও আইজুল হোসেন নামে দুই কলা ব্যবসায়ী। সকাল ১০ টার দিকে তাদের ভটভটিটি মাতাপুর লেভেল ক্রসিং পার হওয়ার সময় রাজশাহী থেকে ছেড়ে আসা চিলাহাটি গ্রামী তিতুমীর আন্তঃনগর ট্রেন ওই ভটভটিকে ধাক্কা দেয়। ওই সময় ভটভটিতে থাকা আইজুল হোসেন লাফ দিয়ে বেঁচে গেলেও চালক মোকলেছার রহমান ট্রেনের ধাক্কায় ভটভটির সাথেই দুমড়ে মুচরে ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান।

নিহত ওই চালকের সাঙ্গে থাকা কলা ব্যবসায়ী আইজুল হোসেন বলেন, পশ্চিম দিক থেকে ওই গেট পার হওয়ার সময় দক্ষিণ দিক থেকে কোন ট্রেন আসছে কিনা তা দেখা যায় না স্থানীয় দোকানঘরের জন্য। আমাদের গাড়ি যখন রেল লাইনের উপরে উঠার আগে ট্রেন দেখতে পাইনি। গাড়িটি তিনটি রেল লাইনের মধ্যে দুটি পার হওয়ার সময় ট্রেন ধাক্কা দেয়। ওই সময় আমি গাড়ি থেকে লাফিয়ে পড়লেও আমার সাথে থাকা মোকলেছার নামতে পারেনি। সে গাড়ির সাথে মুহুর্তেই দুমরে মূচরে ঘটনাস্থলেই মারা যায়। তার এক ছেলে এক মেয়ে সন্তান রয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মাতাপুর গ্রামের ভ্যান চালক বলেন, ঘটনাটি আমার সামনেই ঘটেছে। কলা বোঝাই ভটভটি পশ্চিম পাশ থেকে পূর্ব পাশে আসার জন্য গেটের উপরে উঠে। ওই সময় তিতুমীর আন্তঃনগর ট্রেন ওই গাড়িকে ধাক্কা দেয়। এসময় ভটভটিতে থাকা একজন লাফ দেওয়াই সে বেঁচে যায়। আর চালক গাড়িতে থাকায় সে মারা যায়। ওই গেট পার হওয়ার সময় দূর থেকে ট্রেন আসছে কিনা দেখা যায় না।

মাতাপুর গ্রামের মিলন হোসেন বলেন, আগে এই গেটে বাঁশের গেট ব্যারিয়ার ছিল। তখন স্থানীয় লোকজন সেটি দেখা শোনা করত। এক বছর আগে এই গেটে লিগন্যাল লাইট, গেট ব্যারিয়ার ও গেট ম্যান থাকার জন্য বিশ্রামাগার তৈরি করে রেল কর্তৃপক্ষ। তবে কোন গেটম্যান এখন পর্যন্ত এখানে নেই।

লিটন হোসেন বলেন, ট্রেন আসা দেখলে অনেক সময় স্থানীয়রাই গেট ব্যারিয়ারটি নামানো উঠানো করে। গেট ম্যান না থাকায় আজকের মতো এর আগেও এই গেটে প্রাণহারি মতো ঘটনা ঘটেছে।

শফিকুল ইসলাম বলেন, ট্রেন আসার সময় এখানে কোন ট্রেন হর্ণ দেয় না। আপনাদের মাধ্যমে সরকারের কাছে জানাই এই গেটের কাছে ট্রেন পৌছার আগে যেন হর্ণ দেয় ট্রেন চালকেরা।

রুকিন্দীপুর ইউপি চেয়ারম্যান আহসান কবির এপ্লব বলেন, দীর্ঘ দিন ধরে আমার ইউনিয়নের মধ্যে মাতাপুর লেভেল ক্রসিংয়ে কোন গেটম্যান নেই। একারনে এখানে প্রায় দূর্ঘটনা ঘটে। বর্তমানে এখানে লেভেক্রসিংয়ে আধুনিকরন করা হলেও নেই কোন স্থায়ী গেটম্যান। অবিলম্বে এখানে রেলকর্তৃপক্ষ গেটম্যান না দিলে আজকের মতো আরও অনেক লোকের প্রাণ হানি ঘটবে।

আক্কেলপুর রেল ষ্টেশনের ইনচার্জ খাতিজা আক্তার বলেন, জামালগঞ্জ রেল ষ্টেশনের দক্ষিনে টি/৭৬ নম্বর লেভেল ক্রসিংয়ে কোন গেটম্যান এখনও দেয়নি রেলওয়ের উর্ধতন কর্তৃপক্ষ। তবে লেভেল ক্রসিংয়ে নতুন করে গেট ব্যারিয়ার বসানো হয়েছে। এবং গেটম্যানের জন্য একটি নতুন বিশ্রামাগারও তৈরি করা হয়েছে। আশা করছি কর্তৃপক্ষ খুব দ্রুত সেখানে গেটম্যান নিয়োগ দিবে।

সান্তাহার রেলওয়ে (জিআরপি) থানার পরিদর্শক মনজের আলী বলেন, ঘটনাটি আমি জানার পরে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছি।

পদ্মাটাইমস ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
topউপরে