নন্দীগ্রামে দাদন ব্যবসায়ীর মারপিটে স্কুল শিক্ষকের মৃত্যু

প্রকাশিত: জানুয়ারি ২২, ২০২০; সময়: ৫:১৯ অপরাহ্ণ |
নন্দীগ্রামে দাদন ব্যবসায়ীর মারপিটে স্কুল শিক্ষকের মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক, নন্দীগ্রাম : বগুড়ার নন্দীগ্রামে দাদন ব্যবসায়ীদের মারপিটে সাইফুল ইসলাম (৫০) নামের এক স্কুল শিক্ষকের মুত্যু হয়েছে। বুধবার (২২ জানুয়ারি) সকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তিনি মারা যান। সাইফুল ইসলাম উপজেলার পেং হাজারকি হুশিয়ারপাড়া গ্রামের মজিবর রহমানের ছেলে। সে দোলছাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক ছিলেন ।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, গত সোমবার সন্ধ্যার পর সাইফুল ইসলাম বাড়ি থেকে বের হয়ে যায়। এরপর সে বাড়ী ফিরে না আসায়। তার পরিবারের লোকজন তাকেঁ খোজ খবর করতে থাকে। একপর্যায় তার কর্মস্থল দোলগাছি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বারান্দায় হাত-পা বাধা অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে। ঘটনাস্থল থেকে তাকেঁ উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে দেয়া। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল বুধবার সকালে তিনি মারা যান।

নিহতের পারিবারিক সুত্রে জানা যায়, এলাকার একাধিক দাদন ব্যবসায়ীর কাছ থেকে ১৫-১৬ লাখ টাকা দাদনে নিয়ে পরিশোধ করতে পারছেন না। সাইফুল ইসলামের বেতনের চেক বইও দাদন ব্যবসায়ীদের কাছে রয়েছে। টাকা আদায়ের জন্য দাদন ব্যবসায়ীরা সাইফুল ইসলামকে চাপ দিয়ে আসছিল। দাদন ব্যবসায়ীরাই সাইফুল ইসলামকে মারপিট করে হাত-পা বেধে স্কুলের বারান্দায় ফেলে রেখে গেছে বলে পরিবারের পক্ষ থেকে দাবী করা হয়।

এ বিষয়ে বুড়ইল ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব নূর মোহাম্মদ বলেন, সাইফুল ইসলাম সোমবার সন্ধ্যায় দোলগাছি বাজারে যান। সেখান থেকে কে বা কারা তাকে ধরে নিয়ে হাত-পা বেধে মারপিট করে ফেলে রেখে যায়।

থানার অফিসার ইনচার্জ শওকত কবির বলেন, সাইফুল ইসলাম হাসপাতালে মারা গেছেন বলে শুনেছি। তবে কি ভাবে মারা গেছেন তা জানা যায়নি। লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে।

পদ্মাটাইমস ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
topউপরে