বাগমারায় ফসলের সাথে শত্রুতা!

প্রকাশিত: জানুয়ারি ২৬, ২০২০; সময়: ৫:২৭ অপরাহ্ণ |
বাগমারায় ফসলের সাথে শত্রুতা!

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, বাগমারা : রাজশাহীর বাগমারায় শত্রুতা করে শনিবার (২৫ জানুয়ারী) রাতে এক কৃষকের পান বরজের পানের ডোগা ও পেঁয়াজের চারা কেটে পাঁচ লক্ষ টাকার ক্ষতি স্বাধন করেছে দুর্বৃত্তরা। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার মাড়িয়া ইউনিয়নের গাঙ্গোপাড়া গ্রামে। ওই ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত কৃষক লোকমান হোসেন (৪৮) বাদী হয়ে বাগমারা থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছেন। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন বলে জানা গেছে।

থানার লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার মাড়িয়া ইউনিয়নের গাঙ্গোপাড়া গ্রামের ভ্যান চালক কৃষক লোকমান হোসেন বাড়ির সংলগ্ন জমিতে পান বরজ তৈরী করে পান চাষ শুরু করেন। পান চাষ করে তিনি ভাগ্যে পরিবর্তন ঘটানোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। এছাড়া তিনি ৮শতাংশ জমিতে পেয়াঁজের বীজ বপন করেন। বীজ গুলো বর্তমানে চারাতে রুপান্তরিত হয়েছে। বর্তমানে পেঁয়াজের চারার বাজার মূল্য প্রায় দেড় লক্ষ টাকা হবে বলে কৃষক লোকজমান হোসেন জানিয়েছেন। কৃষক লোকমান হোসেনের অভিযোগ, তার জানা মতে এলাকার বা বাহিরের কোন মানুষের সাথে তার শত্রুতা নেই। এমন কর্মকান্ডে তিনিও ভেঙ্গে পড়েছেন।

এলাকার লোকজন জানান, লোকমান হোসেন একজন ভাল মানুষ। তিনি ভ্যানগাড়ী চালিয়ে বীজিকা নির্বাহ করতেন। বর্তমানে তিনি বাড়ির পার্শ্বের জমিতে পান বরজ দাঁড় করেছেন। এছাড়াও তিনি ফসল করার জন্য পেঁয়াজের বীজ বপন করেছেন। পেঁয়াজের বীজ এখন চারায় রুপান্তরিত হয়েছে। বর্তমান বাজারে পেঁয়াজের চারার মূল্য অনেক বেশী। মানুষ শত্রুতা করে তার এমন ক্ষতি করেছে। যারা লোকমান হোসনেরে এই ধরনের ক্ষতি স্বাধন করেছেন তারা ঠিক কাজ করেনি। ঘটনার সাথে যারাই জড়িত থাকুক তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার দরকার বলে এলাকার লোকজন মনে করেন। কৃষক লোকমান হোসেন বলেন, দুর্বৃত্তরা আমার সাথে শত্রুতা করে পান বরজ ও পেঁয়াজ ক্ষেতের চারা কেটে প্রায় পাঁচ লক্ষ টাকার ক্ষতি স্বাধন করেছেন। তিনি ওই সকল দুর্বৃত্তদের চি‎িহ্নত করে আইনের আওতায় আনার দাবী জানিয়েছেন।

খবর পেয়ে উপজেলা কৃষি অফিসার রাজিবুর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। কৃষক লোকমান হোসেনের ফসলের ক্ষতি দেখে তিনি ব্যতিত হয়েছেন। তিনি এমন ঘটনার জন্য দুঃখ প্রকাশ করে এলাকার লোকজনকে এই ধরনের কর্মকান্ড থেকে বিরত থাকার আহবান জানিয়েছেন।

এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে বাগমারা থানার ওসি আতাউর রহমান অভিযোগের বিষয়টি স্বীকার করেছেন। তিনি বলেন, পুলিশকে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন বলে তিনি জানিয়েছেন।

পদ্মাটাইমস ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
topউপরে