ধামইরহাটে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে সরকারী জায়গায় ভাড়া ও অনিয়মের অভিযোগ

প্রকাশিত: জানুয়ারি ২৭, ২০২০; সময়: ৫:১৬ অপরাহ্ণ |
ধামইরহাটে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে সরকারী জায়গায় ভাড়া ও অনিয়মের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক, ধামইরহাট : নওগাঁর ধামইরহাটে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে সরকারী জায়গায় ভাড়া দেওয়াসহ বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে।

ম্যানেজিং কমিটি ও স্থানীয়দের অভিযোগে জানা গেছে, উপজেলার রুপনারায়নপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সুলতান মামুন রেজা বিদ্যালয়ের পুরাতন অবকাঠামোতে দোকানঘর হিসেবে ভাড়া দিয়েছেন যা, বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতিকে অবহিত করা হয়নি, ভাড়াটিয়া আলম হোসেন ২শত টাকার মাসিক ভাড়ার কথা উল্লেখ করেন এবং সে বাঁশ ও টিন দিয়ে ঘর নির্মান করেছেন বলে জানান।

সোমবার (২৭ জানুয়ারী) বিকেল ৩ টায় ঘটনাস্থলে সরেজমিন গিয়ে প্রধান শিক্ষককে বিদ্যালয়ে পাওয়া যায়নি, এছাড়াও বিদ্যালয়ে রাতের বেলায় মাদকসেবীরা আড্ডা দেয় ও নেশা সেবন করে বলেও স্থানীয়রা অভিযোগ করেন।

বিদ্যালয়ে সভাপতি মোকলেছার রহমান অভিযোগ করে বলেন, ‘আমার প্রধান শিক্ষক আমাকে না জানিয়ে কমিটির কোনরুপ রেজুলেশন ছাড়াই ঘর ভাড়া দিয়েছে, যা বিধি বহির্ভূত।’ দোকানঘর ভাড়া দেওয়ার বিষয়টি স্বীকার করে প্রধান শিক্ষক সুলতান মামুন রেজা বলেন, ‘আমি এইউটিও (সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার) স্যারের নির্দেশে ভাড়া দেওয়া দোকানটিতে কার্যক্রম বন্ধ করতে আজকে ভাড়াটিয়াকে বলেছি’ নিজের কাজে বাজারে এসেছিলাম।”

উপজেলা শিক্ষা অফিসার গোলাম মোস্তফা বলেন, প্রধান শিক্ষক কোন ভাবেই সরকারী জায়গা একক সিদ্ধান্তে ভাড়া দিতে পারেন না, বিষয়টি ভালভাবে জেনে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

স্থানীয় বাসিন্দা মোকসেদ আলী ও আব্দুল বারিক দেওয়ান অভিযোগ করেন, রাতের বেলায় বিদ্যালয়ের নতুন ভবনের উপর তলায় আমার জামাই তাস খেলে, নৈশ্য প্রহরী তাদের সাপোর্ট দেয়। , এছাড়াও স্থানীয়রা রুপনারায়নপুর গ্রামের রিয়াজ উদ্দিনের ছেলে জাইবর হোসেন বলেন, এখানে প্রতি নিয়ত নেশা বিক্রি হয়, মাদকসেবীদের আড্ডা চলে সব সময়, আমাকে দোকানটি ভাড়া দিলে, আমি সেখানে কোচিং সেন্টার করে শিক্ষার্থীদের কল্যানে কাজ করবো, এবং পরিবেশ ফিরিয়ে আনবো।

এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে নৈশ্য প্রহরী জাকারিয়া নিজের অসহায়ত্বের কথা স্বীকার করে বলেন, আমি নিরুপায়, রাতের বেলায় থাকি, বেশি কিছু বললে আমার ক্ষতি হতে পারে।’

এলাকাবাসী ও স্থানীয়রা বলেন, প্রধান শিক্ষক যেখানে নিজেই টাল-মাতাল অবস্থা, তাকে স্বাভাবিক মনে করেন না বিদ্যালয়ের সভাপতি মোকলেছার রহমান ও অভিভাবকরা, যাকে দোকানঘরটি ভাড়া দেওয়া হচ্ছে সে ব্যবসা নয় এলাকার পরিবেশ নষ্ট করবে।

পদ্মাটাইমস ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
topউপরে