অবশেষে রহনপুর রেল স্টেশনে ফেলে যাওয়া সেই বৃদ্ধা মহিলা ফিরে পেল পরিবার

প্রকাশিত: জানুয়ারি ২৯, ২০২০; সময়: ৬:৪০ অপরাহ্ণ |
অবশেষে রহনপুর রেল স্টেশনে ফেলে যাওয়া সেই বৃদ্ধা মহিলা ফিরে পেল পরিবার

নিজস্ব প্রতিবেদক, চাঁপাইনবাবগঞ্জ :অবশেষে রহনপুরের সেই শতবর্ষী অসহায় বৃদ্ধা ফিরে পেলেন পরিবার। ২৮  জানুয়ারি মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে রাহেলা খাতুনকে নিয়ে যায় তাঁর ছেলে। অঙ্গিকারনামা করে গোমস্তাপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মিজানুর রহমান ও রহনপুর পৌর সভার মেয়র তারিক আহম্মেদ বৃদ্ধা রাহেলাকে ছেলে আবুল কাশেম এর নিকট বুঝিয়ে দেন। যশোর জেলার ঝিকরগাছা ইউনিয়নের রামচন্দ্রপুর এলাকার মৃত নবী মন্ডলের ছেলে মো. আবুল কাশেম (৫৫), পুত্রবধু মোসা. রহিমা বেগম, নাভারন ইউনিয়নের সদস্য
মো. বিল্লাল হোসেন, প্রতিবেশী মো. মহিউদ্দিন উপস্থিত ছিলেন।

অঙ্গিকারনামায় যাবতীয় দেখাসোনা ও চিকিৎসার বহনের অঙ্গিকার করেন রাহেলা বেগমকে নিতে আসা পুত্রসহ অন্যরা। এ নিয়ম যথাযোথ ভাবে পালন করার অঙ্গিকার করেন পরিবারবর্গ।

গোমস্তাপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মিজানুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (গোমস্তাপুর সার্কেল) মো. জাহিদুর রহমান, মেয়র তারিক আহম্মেদ, আইসি আব্দুল মালেকসহ বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার উপস্থিতিতে বৃদ্ধা রাহেলা বেগমকে পরিবারের নিকট হস্তান্তর করা হয়।

উল্লেখ্য, অসহায় শতবর্ষী বৃন্ধর কি ঠাই হবে না কোথাও শিরোনামে চাঁপাইনবাবগঞ্জ হেল্পলাইনসহ বিভিন্ন অন-লাইন নিউজ পোর্টাল ও পরবর্তীতে বিভিন্ন টিভি চ্যানেলে সংবাদ প্রকাশ হবার পর রহনপুর রেল স্টেশনে ফেলে যাওয়া শতবর্ষী মহিলার দায়িত্ব নেন, রহনপুর তদন্ত কেন্দ্রের আইসি আব্দুল মালেক, এএসআই তৌহিদুল ইসলাম ও পুলিশের বিশেষ শাখার ডিএসবির নুরুন্নবী। ১৪ দিন ধরে শতবর্ষী বৃদ্ধ মহিলা খোলা আকাশের নিচে পড়ে আছে এমন সংবাদ জানার পর গত ২৫ ডিসেম্বর রাতেই উন্নত চিকিৎসার জন্য উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয় অসহায় বৃদ্ধা মহিলাকে। স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রাতেই ছুটে আসেন রহনপুর পৌর মেয়র তারিক আহম্মেদ। এ সময় তিনি বৃদ্ধার খোঁজ খবর নেন এবং বৃদ্ধ মহিলার পাশে থাকার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। তিনি শতবর্ষী বৃদ্ধ মহিলাটিকে কম্বলও দিয়ে যান। আমের রাজধানী খ্যাত চাঁপাইনবাবগঞ্জের রহনপুর রেল স্টেশনের ২ নম্বর প্লাটফর্মে প্রায় শতবর্ষী অজ্ঞাত এক বৃদ্ধ নারীকে ফেলে যায় পরিবারের লোকজন। প্রায় ১৪ দিন ধরে রহনপুর রেল স্টেশন চত্ত্বরের একটি তেঁতুল গাছের পাশে দিন কাটাচ্ছিলেন চরম কষ্টে তিনি। স্থানীয় এলাকার মানুষ জানিয়েছিল, প্রায় ১৪ দিন আগে স্বজনরা তাকে ভ্যান গাড়ী যোগে প্লাটফর্মে ফেলে রেখে যায়। তারপর থেকে কেউ তার কোন খোঁজ খবর নেয়নি। সিরাজুল নামে স্থানীয় এক ব্যক্তি তার খোঁজ খবর নিয়েছিলেন।

পদ্মাটাইমস ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
topউপরে