রাজশাহীতে জামায়াত নেতার হামলায় নারী জখম, শ্লীলতাহানির অভিযোগ

প্রকাশিত: জানুয়ারি ৩০, ২০২০; সময়: ৪:৪৭ অপরাহ্ণ |
রাজশাহীতে জামায়াত নেতার হামলায় নারী জখম, শ্লীলতাহানির অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক : তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে রাজশাহী নগরীর বসুয়া এলাকার এক বাড়িতে প্রবেশ করে এক নারীকে পিটিয়ে জখম করেছে এক জামায়াত নেতা। পরে ওই নারীকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহত নারীর নাম রূপালী বেগম (৪০) তিনি ওই এলাকার অটোচালক বাদলের স্ত্রী।

বুধবার দিবাগত রাত সাড়ে ৯ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় অভিযুক্তের নাম মাহবুবুল আলম কাজল (৪৫)। তিনি একই এলাকার মৃত বেলাল হোসেনের ছেলে। তিনি জামায়াত নিয়ন্ত্রিত বিসমিল্লাহ একাডেমীর পরিচালক ও নগরীর ৯ নম্বর ওয়ার্ড জামায়াতে ইসলামীর রোকন। তার বিরুদ্ধে নাশকতার একাধিক মামলা রয়েছে বলে জানা গেছে। এ ঘটনায় তার বিরুদ্ধে শ্লিলতাহানীর চেষ্টার অভিযোগ তুলেছেন আহত গৃহবধূ রূপালী ও তার স্বামী বাদল।

হাসপাতালে চিকিৎসাধিন রূপালী জানান, তার ছেলে অনিক পঞ্চম শ্রেনী পর্যন্ত কাজলের বিসমিল্লাহ একাডেমীতে পড়তো। একবছর আগে তাকে ওই একাডেমী থেকে বের করে পাশের উচ্চ বিদ্যালয়ে ভর্তি করা হয়। এরপর থেকেই কাজল বিভিন্নভাবে ওই পরিবারকে হুমকি-ধামকি দিয়ে আসছিলো। সর্বশেষ বুধবার বিকেলে স্থানীয় মাঠে খেলতে গিয়ে রূপালীর ছেলে অনিকের সঙ্গে কাজলের ছেলের মারামারি হয়। এ ঘটনার জের ধরে রাত সাড়ে ৯ টার দিকে কাজল রূপালীর বাড়িতে প্রবেশ করে তাকে এলোপাথারি মারধর শুরু করে। এ সময় বাড়ীতে তার স্বামী না থাকায় শ্লিলতাহানীর চেষ্টাও করে। পরে আহত অবস্থায় প্রতিবেশীরা রূপালীকে উদ্ধার করে প্রথমে রাজপাড়া থানায় নিয়ে যান। সেখানে ওসির পরামর্শে তাকে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এখন তিনি রামেক হাসপাতালের ৪০ নম্বর ওয়ার্ডে চিকিৎসাধিন।

প্রতিবেশীরা জানান, জামাত নেতা মাহবুবুল আলম কাজল এলাকার সবার সঙ্গেই খারাপ আচরণ করেন। তার ভয়ে কেউ কিছু বলার সাহস পায় না। এলাকায় প্রভাবশালী ও জামাতের সঙ্গে সম্পৃক্ততার কারনে কেউ তাকে কিছু বলেন না। এ কারনে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় নাশকতার মামলাও রয়েছে বলে অভিযোগ করেন প্রতিবেশীরা।

নগরীর রাজপাড়া থানার ওসি শাহাদাৎ হোসেন বলেন, হামলার শিকার নারী রাতেই থানায় এসে ঘটনা অবহিত করেছেন। তার অবস্থা ভালো না থাকায় তাকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে ভর্তির পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা দায়ের করলে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান তিনি। রূপালীর স্বামী বাদল জানান, এ ঘটনায় শিগগিরই তারা থানায় মামলা দায়ের করবেন।

পদ্মাটাইমস ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
topউপরে