জানুয়ারী মাসে রাজশাহীতে যত নারী ও শিশু নির্যাতন

প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ১, ২০২০; সময়: ১২:০৩ অপরাহ্ণ |

নিজস্ব প্রতিবেদক : উন্নয়ন সংস্থা লেডিস অর্গানাইজেশন ফর সোসাল ওয়েলফেয়ার (লফস) অত্র জেলায় দীর্ঘদিন যাবৎ নারী ও শিশুর উন্নয়নে কাজ করছে। মানবাধিকার সংগঠন হিসেবে লফস সংস্থার ডকুমেন্টেশন সেল থেকে রাজশাহীর প্রচারিত দৈনিক পত্রিকার সংবাদের ভিক্তিতে নিয়মিত নারী ও শিশু নির্যাতনের পরিস্থিতি প্রকাশ করে। লফস মনে করে অত্র অঞ্চলে নারী ও শিশু নির্যাতন পরিস্থিতি বিভিন্ন মাত্রায় অবনতি ঘটছে। যৌতুক ও পরকীয়ার কারনে অধিকাংশ নারী ও শিশু নির্যাতনের ঘটনা ঘটছে। অনেক ক্ষেত্রে বিদেশি কিছু টিভি সিরিয়াল পরকিয়াকে উৎসাহিত করছে। এছাড়া পারিবারিক কলহ ও প্রেম ঘটিত কারনে হত্যা-আত্মহত্যা ও অমানবিক নির্যাতনের মতো ঘটনা ঘটছে। বিষয়গুলো কারও জন্য সুখকর নয়।

জানুয়ারী মাসে অমানবিক কিছূ ঘটে যাওয়া ঘটনার চিত্র:
গোদাগাড়ীর খারিজাগাতি মোল্লা পাড়া গ্রামে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষরা ইতি বেগম (৩৫) এর কান ছিরে নিয়ে গেল, একই উপজেলার পৌর এলাকায় শ্রীমন্তপুর গ্রামে মাদকাসক্ত ছেলের হাতে মা শঙ্করা রানী (৬৫) খুন, বাঘায় হিজল পল্লী গ্রামে ফাল্গুনি খাতুন কে (২২) হত্যার অভিযোগ, মোহনপুরের গোছা খন্দকার পাড়া গ্রামে স্ত্রী কামরুন্নাহার তাজরীন (২১) কে শ^াসরোধ করে স্বামীর বিরুদ্ধে হত্যার চেষ্টার অভিযোগ, বাগমারা উপজেলার বাসুপাড়া ইউনিয়নের দেউলিয়া পশ্চিম পাড়ার প্রবাসীর স্ত্রী মৌসুমী (২৫) রহস্যজনক ভাবে নিখোঁজ, দূর্গাপুরের চৌপুকুরিয়া গ্রামের কমিউনিটি ক্লিনিকের কর্মিকে ইউপি সদস্যর বিরুদ্ধে কু-প্রস্তাব ও কর্মস্থলের দেয়ালে অশ্লিল কথা লেখার অভিযোগ, বাগমারার বড় বিহানালী ইউনিয়নের সদস্য এবং বাগান্না গ্রামের বাসিন্দার নির্যাতনের কারনে আক্তারুনেছা (৩৮) নামের গৃহবধুর আত্মহত্যা।

এদিকে, মোহনপুর উপজেলায় এক সন্তানের জননী গৃহবধু (২৩) ধর্ষণের পর নগ্নছবি ইন্টারনেটের মাধ্যমে ভাইরালের অভিযোগ, নগরীর সিলিন্দা বটতলা থেকে মা মোছা: মোর্শেদা খাতুন ও ছেলে মেহেদী (১২) নিখোঁজ হওয়ার অভিযোগ, বাঘায় এক তরুনীকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ, দুর্গাপুর উপজেলায় এক স্কুল ছাত্রীকে প্রেমের ফাদে ফেলে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ, গোদাগাড়ী পৌরসভার ওয়ার্ড কাউন্সিলরের বাড়ীতে এক স্কুলছাত্রী ধর্ষণের শিকার, পুঠিয়ায় এক নাবালিকাকে ধর্ষণের অভিযোগ, মোহনপুরে স্কুলছাত্রীকে উত্ত্যক্ত, তানোরে বিয়েরপর যৌতুকের দাবীতে শারীরিক ও মানুষিক নির্যাতনের ফলে অভিমান করে আত্মহননের পথ বেছে নেয় ফারহানা তিথি (১৮), বাঘায় ৮ম শ্রেণির ছাত্রীকে উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় মামাকে খুন ও দুইজন আহত হওয়ার অভিযোগ, পুঠিয়ায় বানেশ^র রঘুরামপুর এলাকার শ্রাবনী খাতুন আলো (১২) নামের সপ্তম শ্রেণির ছাত্রীর গলায়দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা, বাগমারা উপজেলার বড়বিহানালী গার্লস স্কুল এন্ড কলেজের সহকারী শিক্ষক ১০ম শ্রেণির এক ছাত্রীকে কৌশলে টয়লেটে নিয়ে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ, একই উপজেলার আউচপাড়া ইউনিয়নের মুগাইপাড়া গ্রামে চাচার বিরুদ্ধে ভাতিজিকে (১২) ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ,

অপরদিকে, নগরীর বঙ্গবন্ধু ডিগ্রী কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্রী শ্যাম্পু পান করে আত্মহত্যার চেষ্টা, পুঠিয়ায় সহপাঠির পানি পান করার অপরাধে ৭ম শ্রেণির ছাত্র অনির্বান সেন গুপ্ত পরশ (১২) কে মেরে হাত ভেঙ্গে দেয়, মোহনপুরে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে দশম শ্রেণির এক মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগের ঘটনাগুলো সকলের জন্য উদ্বেগজনক। লফস এর নির্বাহী পরিচালক শাহানাজ পারভীন বলেন সংবাদ পত্রে প্রকাশিত ঘটনার বাইরেও অনেক ঘটনা ঘটে যা প্রকাশিত হয় না বা কোন তথ্য জানা যায় না এমন বাস্তবতায়। রাজশাহীতে নারী ও শিশু নির্যাতনের প্রকাশিত তথ্য হতাশাজনক। রাজশাহী অঞ্চলে নারী – শিশু নির্যাতন সহ সার্বিক ঘটনাগুলোর সুষ্ঠ তদন্ত ও দায়ীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন। তিনি বলেন অপরাধীদের শাস্তি নিশ্চিত করা না গেলে ক্রমশই অপরাধীরা উৎসাহিত হবে এবং অপরাধের মাত্রা বৃদ্ধি পাবে। লফস সকল নারী-শিশু নির্যাতন ঘটনাগুলোর সুষ্ঠ তদন্ত স্বাপেক্ষে অপরাধীর কঠোর শাস্তির দাবী জানান।

পদ্মাটাইমস ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
topউপরে