কাঞ্চনজঙ্ঘার নয়নাভিরাম দৃশ্য দেখতে ভিড় বাড়ছে তেতুলিয়ায়

প্রকাশিত: ১৯-১০-২০২২, সময়: ১১:৩৭ |
Share This

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : কাঞ্চনজঙ্ঘা দেখতে যেতে হয় ভারত কিংবা নেপালে। তবে আকাশ মেঘমুক্ত থাকলে অক্টোবর-নভেম্বরে দেশের সর্বউত্তরের সীমা তেতুলিয়াসহ পঞ্চগড়-ঠাঁকুরগাঁও থেকেও দেখা মেলে সুউচ্চ এই পর্বতশৃঙ্গটির। মনোমুগ্ধকর রূপ দেখতে ভিড় বাড়ছে পর্যটকদের।

হিমালয় পর্বতমালার অংশ পৃথিবীর তৃতীয় উচ্চতম পর্বতশৃঙ্গ কাঞ্চনজঙ্ঘার অবস্থান ভারতের সিকিম ও নেপালজুড়ে। শৈলশহর দার্জিলিং, ঘুম বা কালিম্পংয়ের দৃষ্টিসীমা থেকেও মূল আকর্ষণ এটি। পর্যটকদের কাছে খুবই জনপ্রিয় আট হাজার ৫৮৬ মিটার বা ২৪ হাজার ১৬৯ ফুটের পর্বতটি।

মধ্য অক্টোবর থেকে নভেম্বর পর্যন্ত মেঘমুক্ত আকাশে উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন এলাকা থেকে প্রায়ই দেখা যায় কাঞ্চনজঙ্ঘার চূড়া। মনোরম সেই দৃশ্য দেখে খুশি দর্শনার্থীরা।

পর্যটকরা জানান, “কাঞ্চনজঙ্ঘা দেখার যে ফিলিংস সত্যি সেটা অসাধারণ, বলে বুঝানো যাবেনা। রোদ উঠলে সেটা হালকা হয়, আবার যখন বিকাল হয় তখন সেটা অসাধারণ দৃশ্যে রূপ নেয়। আসলে অবাক করা কিছু একটা দেখেছি আমরা।”

পর্যটকদের নিরাপত্তায় কাজ করে যাচ্ছে ট্যুরিস্ট পুলিশ।

পঞ্চগড় জোন ট্যুরিস্ট পুলিশ পরিদর্শক সিরাজুল ইসলাম বলেন, “পঞ্চগড় একটা নিরাপদ অঞ্চল, এখানে দেখার অনেক সুন্দর সুন্দর জায়গা রয়েছে। আপনারা নির্বিঘ্নে-নিরাপদে এখানে ভ্রমণ করতে পারবেন।”

তেতুলিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোহাগ চন্দ্র সাহা বলেন, “মোহনা নদীর পাড় সংস্কার করেছি, পর্যটকদের বসার জন্য গ্যালারি করা হয়েছে এবং তারা যেন কাঞ্চনজঙ্ঘা পর্বত দেখতে পারেন সেজন্য ওয়াসটাওয়ার নির্মাণ করা হয়েছে।”

সুন্দরী কাঞ্চনজঙ্ঘা সূর্যের আলোর পরশে নিজেকে মেলে ধরে বর্ণিল সাজে। কখনও টুকটুকে লাল, কখনও কমলা, কখনও বা কালো। সব সাজেই কাঞ্চনজঙ্ঘার নয়নাভিরাম দৃশ্য মন কাড়ে পর্যটকের।

উপরে