রাজশাহীতে যুবলীগের ব্যানার-ফেস্টুন ছেঁড়ার ঘটনায় গ্রেপ্তার ২

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২, ২০২৩; সময়: ৪:৪০ অপরাহ্ণ |
রাজশাহীতে যুবলীগের ব্যানার-ফেস্টুন ছেঁড়ার ঘটনায় গ্রেপ্তার ২

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহীতে বিএনপির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর মিছিল থেকে যুবলীগের সম্মেলনের ব্যানার ও ফেস্টুন ছিঁড়ে ফেলার অভিযোগ উঠেছে। শুক্রবার বিকালে মহানগরীর বিভিন্ন সড়কের মধ্যভাগের রেলিং এবং লাইট পোস্টে সাটানো ব্যানার ও ফেস্টুন ছিঁড়ে ফেলা হয়। এ ঘটনায় যুবলীগ কর্মী আব্দুল কারিম বোয়ালিয়া মডেল থানায় বিএনপির অজ্ঞাতনামা নেতাকর্মীদের আসামি করে এজাহার দায়ের করেছেন।

এদিকে, এ ঘটনায় শনিবার দুপুরে পুলিশ ২ জনকে মহানগরীর মালোপাড়া এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করেছে। এরা হলেন- রাজশাহী মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের আহবায়ক কমিটির সদস্য পিয়ারুল হায়দার আবু (৪২) ও মহানগরীর ১২ নম্বর ওয়ার্ড যুবদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শামীম হোসেন (৪২)।

মহানগর যুবলীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সাবেক সদস্য আব্দুল কারিম এজাহারে উল্লেখ করেন, আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর রাজশাহী মহানগর যুবলীগের সম্মেলন। পদ প্রত্যাশীরা নগরীজুড়ে ব্যানার ও ফেস্টুন সাটিয়েছে। মহানগরীর বিভিন্ন সড়কের মধ্যভাগের রেলিং এবং লাইট পোস্টে ব্যানার ও ফেস্টুন সাটানো হয়।

আব্দুল কারিম বলেন, শুক্রবার বিকালে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর র‌্যালিতে যাওয়ার সময় বিএনপি নেতাকর্মীরা মহানগরীর গৌরহাঙ্গা, বিন্দুর মোড়, নিউমার্কেট, রাণীবাজার এবং ফায়ারব্রিগেড মোড়সহ বিভিন্ন এলাকায় সাটানো ব্যানার ও ফেস্টুন ছিঁড়ে ফেলেন। এসময় ২৩০টি ব্যানার ও ফেস্টুন ছিঁড়ে ফেলা হয়েছে। এর ফলে লক্ষাধিক টাকার ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছে।

তিনি বলেন, ব্যানার এবং ফেস্টুনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান শেখ ফজলুল হক মনি, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনসহ শীর্ষ নেতাদের ছবি ছিল। ব্যানার ও ফেস্টুনের ছবি ছিঁড়ে ফেলে বিএনপির নেতাকর্মীরা ধৃষ্টতা দেখিয়েছেন। এটি রাষ্ট্রদ্রোহের শামিল। একারণে আইনের আশ্রয় নিয়েছি। এ ঘটনায় জড়িতদের আমি দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি।

এ ব্যাপারে রাজশাহী মহানগর বিএনপির আহবায়ক অ্যাডভোকেট এরশাদ আলী ঈশা বলেন, বিষয়টি আমি জানি না। ঘটনাটি শুনিনি। আমার জানামতে যুবলীগ নেতাদের ব্যানার বা ফেস্টুন ছিঁড়ার ঘটনার সাথে বিএনপি নেতাকর্মীরা জড়িত না।

এ ব্যাপারে বোয়ালিয়া মডেল থানার ওসি (তদন্ত) আমিরুল ইসলাম বলেন, মামলা রেকর্ড করা হয়েছে। ইতোমধ্যে দুইজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ঘটনার সাথে জড়িত অন্যদেরও গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
পদ্মাটাইমস ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
topউপরে