রাজশাহীর পবায় ভূয়া মালিক সাজিয়ে জমি রেজিস্ট্রির অভিযোগ

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ৫, ২০২৩; সময়: ৭:০৪ অপরাহ্ণ |
রাজশাহীর পবায় ভূয়া মালিক সাজিয়ে জমি রেজিস্ট্রির অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহীর পবায় ভূয়া মালিক সাজিয়ে জমি রেজিস্ট্রির অভিযোগ উঠেছে। জমির দলিল বাতিলসহ অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে শাস্তির দাবিতে জেলা রেজিস্ট্রারসহ বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ হয়েছে। উপজেলার মধুসুদনপুর গ্রামের মৃত তজর আলীর ছেলে মো. কাওছার আলী এ অভিযোগ করেন।

তাদের তিন ভাই সাজ্জাদ, সাইফুল ওরফে কাওসার ও জুয়েল শূন্য দশমিক ৫১ একর জমি ক্রয় করে ভোগদখল করতে থাকেন। তাদের এক ভাই জুয়েল ১৯৯৫ইং সালের দিকে অবিবাহিত অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন। তার জমি অন্য প্রাপ্যদারদের ভাগ না দিয়ে প্রতারণা ও জালিয়াতির মাধ্যমে পবা সাব রেজিস্ট্রি অফিসের দলিল লেখক মো. ইসরাইল হোসেন-দলিল লেখার সনদ নং ১১৮, মো. রাকিবুল হাসান-দলিল লেখার সনদ নং ১৩৩ ও বিলনেপালপাড়া গ্রামের মৃত মাহফুজ হোসেনের ছেলে মো. আল আমিন দলিল লেখক সহকারি এই তিনজনের যোগসাজসে সারোয়ার (সাইফুল ইসলাম) জুয়েল আহাম্মদ তিন নামের একই ব্যক্তি পরিচয় দিয়ে ২০২২ সালের ৬ ডিসেম্বর হেবার ঘোষণা দলিল রেজিস্ট্রি করেন।

সারোয়ার (সাইফুল ইসলাম) জুয়েল আহাম্মদ ১২৩৬৫ হেবার দলিলে আবু সফিয়ান সাইফকে শূন্য দশমিক ২২৫০ একর ও ১২৩৬৬ হেবার দলিলে শূন্য দশমিক ১০০০ একর জমি হস্তান্তর করেন। এতে ওই দুইজন দলিল লেখক ও একজন সহকারি পাঁচ লাখ টাকা হাতিয়ে নেন। ফলে প্রকৃত মালিকরা জমি থেকে বঞ্চিত হয়ে নিঃস্ব হয়ে পড়ে। এসব ভূয়া দলিল বাতিল ও অভিযুক্তদের শাস্তির দাবিতে মো. কাওসার আলী জেলা রেজিস্ট্রারসহ বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ করেছেন।

পবা উপজেলা সাব রেজিস্ট্রার তানিয়া তাহের বলেন, যখন এই জমি রেজিস্ট্রি হয় তখন এই অফিসের দায়িত্বে ছিলাম না। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

পদ্মাটাইমস ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
topউপরে