রাজশাহীতে শীতের সবজিতে খানিকটা স্বস্তি

প্রকাশিত: নভেম্বর ১৭, ২০২৩; সময়: ১২:০৭ অপরাহ্ণ |
রাজশাহীতে শীতের সবজিতে খানিকটা স্বস্তি

নিজস্ব প্রতিবেদক : শীতের নিঃশ্বাস পড়ার সাথে সাথে রাজশাহীর বাজারগুলোতে উঠতে শুরু করেছে শীতের সবজি। ফলে গত সপ্তাহের তুলনায় কিছুটা কমেছে শাক-সবজি দাম। তবে তা এখনও মধ্যবিত্তের নাগালের বাইরে ।

দামের এ নিম্নমুখী প্রবণতায় খুব বেশি খুশি নন সাধারণ ক্রেতারা। এদিকে চাল, ডাল চিনিসহ নিত্যপণ্যের দাম বেড়েই চলছে। ফলে সবজির বাজারে কিছুটা স্বস্তি থাকলেও নিত্যপণ্যের বাজারে নেই কোন স্বস্তির খবর ।

শুক্রবার (১৭ নভেম্বর) মহানগরীর বিভিন্ন কাঁচাবাজার ঘুরে দেখা যায়, বাজারে ঘাটতি নেই সবজির। শীতকালীন সবজির সরবরাহ যথেষ্ট পরিমাণ থাকায় কমতে শুরু করেছে দাম। তবে চাল ডালসহ নিত্যপণ্যের বাজারের আগুন যেন নিভছেই না।

বাজারে আলু বিক্রি হচ্ছে প্রতি কেজি ৪৫ টাকায়, শীতের অন্যান্য সবজির মধ্যে ফুলকপি কেজি প্রতি ৪০ টাকা, শিম ৫৫ থেকে ৬০ টাকা, বেগুন বিক্রি হচ্ছে প্রতি কেজি ৩৫ থেকে ৪০ টাকা, লাউ ২৫ থেকে ৩০ টাকা, কাঁচা পেঁপে ২৫ টাকা, সবরকমের শাক ২০ থেকে ২২ টাকা, কাঁচা মরিচ ১০০ টাকা, পেঁয়াজ ১০০ থেকে ৯০ টাকা, রশুন ২৪০ থেকে ২৮০ টাকা।

অন্যদিকে মাছ মাংসের দাম অপরিবর্তিত যা সাধারণত ক্রেতাদের সাধ্যের বাইরে । ‘গরিবের মাছ’ পাঙাশও যেনো মাঝেমধ্যে চোখরাঙানি দেয়। বাজার ঘুরে দেখা যায়, রুই আকারভেদে ২৫০ থেকে ৩২০ টাকা, পাঙাশ ২২০-২৫০ টাকা, কই ২৮০-৩৫০, সিলভার ১৫০ থেকে ১৬০ টাকা, আকারভেদে ইলিশ বিক্রি হচ্ছে প্রতি কেজি ১২০০ থেকে ১৪০০ টাকা।

মাংসের বাজারে খাসির মাংস বিক্রি হচ্ছে কেজি প্রতি ১০০০ থেকে ১০৫০ টাকা, গরুর মাংস ৭৫০ টাকা, সোনালী মুরগি ২৮০ টাকা ও ব্রয়লার মুরগি ১৭০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ডিম বিক্রি হচ্ছে সাদা ৩৬ টাকা আর লালটা ৪০ টাকা হালিতে।

বাজারের পরিস্থিতি সম্পর্কে জানতে চাইলে এক ক্রেতা বলেন, দাম কমলেই কি? আর কমবেই বা কতটুকু। দাম তো আগেই তিন চার গুণ বেড়ে আছে। এখন দুই-চার টাকা কমলে তো লাভ নেই। আমাদের মতো ভোক্তাদের নাভিশ্বাস।

খুচরা বিক্রেতা আরিফুল ইসলাম বলেন, শীতের সবজি বাজারে আসতে শুরু করেছে এখন সবজির দাম আরও কমবে খুব শীঘ্রই দাম সকলের নাগালের মধ্যে চলে আসবে ।

 

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
পদ্মাটাইমস ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
topউপরে