সেরাদের সেরা, মাস্টারমাইন্ড পেপ গার্দিওলা

প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ১০, ২০২৪; সময়: ১১:৩৯ পূর্বাহ্ণ |
সেরাদের সেরা, মাস্টারমাইন্ড পেপ গার্দিওলা

ফাতিন ইশরাক : ২০০৮ সালে ম্যানচেস্টার সিটির মালিকানা কেনার পরই শেখ মনসুরের একটাই লক্ষ্য ছিল, ক্লাবকে একটা চ্যাম্পিয়নস লিগ জেতানো। সেই উদ্দেশ্য সফল করতে উড়িয়ে এনেছিলেন মানচিনি পেলোগ্রিনির মত কোচদের। তবে তাতেও যেন কাজ হলো না। এরপর মনসুর ম্যানচেস্টারের নীলাভ ডাগআউটে বায়ার্ন থেকে নিয়ে আসলেন এক মাষ্টারমাইন্ডকে, নাম তার পেপ গার্দিওলা।

প্রথম মৌসুমেই গার্দিওলাকে দেওয়া হলো ইচ্ছেমত খরচের ছাড়পত্র। কিন্তু আশা পূরণ করতে ব্যর্থ হন গার্দিওলা। সেবার প্রিমিয়ার লিগে সিটি তৃতীয় হয়, যা গার্দিওলার ম্যানেজার ক্যারিয়ারে লিগে ছিল সবচেয়ে বাজে অবস্থান।

অনেক ফুটবল যোদ্ধারা ধরেই নিয়েছিলেন গার্দিওলা বিশ্বের সবচেয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ঘরোয়া ক্রীড়া আসর প্রিমিয়ার লিগে সফল হতে পারবেন না। কিন্তু গার্দিওলাও যে দমার পাত্র নন। সবার কল্পনাকে ভুল প্রমাণিত করে পরের মৌসুমেই সিটিকে জেতান প্রিমিয়ার লিগ। ২০১৮-১৯ মৌসুমে ম্যান সিটি জিতে নেয় সবগুলো ঘরোয়া শিরোপা।

এরপর ইংল্যান্ড জয়ের পর গার্দিওলা মনোযোগ দেন ইউরোপে। ২০২০-২১ মৌসুমে চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনালে উঠে সিটি। কিন্তু চেলসির বিরুদ্ধে সেবার স্বপ্নভঙ্গ হয় তাদের, হাতছোঁয়া দূরত্ব থেকে ফিরে আসতে হয় পেপকে। পরের বার রিয়ালের কাছে সেমি ফাইনালে হেরে চ্যাম্পিয়নস লিগ জার্নি শেষ করতে হয় তাকে।

তবে কোনো পরাজয়ই যেন দমাতে পারেনি গার্দিওলার মনোবলকে। ২০২২-২৩ সিজনে অবশেষে চ্যাম্পিয়নস লিগ জিতে সিটিজেনরা, যেই শিরোপা জয়ের আকাঙ্খা ছিল তাদের বহুকালের। এই জয়ের ফলে দলের সাথে সাথে খরা কাটলো গার্দিওলারও। বার্সেলোনা ছাড়ার পর নিজের প্রথম সেরা শিরোপা জিতলেন তিনি।

যেই সিটির ইউরোপিয়ান সাকসেস বলতে ছিল একবার মাত্র সেমি ফাইনাল খেলা, গার্দিওলা তাদের শিরোপাসহ টানা তিনবার চ্যাম্পিয়নস লিগ সেমি ফাইনালে তুললেন। সিটি তাদের ইতিহাসে সর্বমোট শিরোপা জিতেছে ৩৪ টি, যার অর্ধেকই জিতিয়েছেন গার্দিওলা।

আর এতে করে পেপ গার্দিওলার ম্যানচেস্টার সিটি প্রিমিয়ার লিগকে বড্ড একপেশে বানিয়ে ফেলেছে। গার্দিওলার অধীনে সর্বশেষ ছয় মৌসুমে পাঁচবারই চ্যাম্পিয়ন হয়েছে সিটি। এর মধ্যে ২০১৭–১৮ মৌসুমে লিগ ইতিহাসের প্রথম ক্লাব হিসেবে ১০০ পয়েন্ট অর্জনের কীর্তিও গড়েছে।

হাড্ডাহাড্ডি লড়াই যে হয়নি, তা নয়। কিন্তু কঠিন চ্যালেঞ্জগুলো বারবার উতরে গেছে সিটি। ২০১৮–১৯ ও ২০২১–২২ মৌসুমে একেবারে শেষ দিনে গিয়ে লিভারপুলকে ১ পয়েন্টের ব্যবধানে পেছনে ফেলে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল গার্দিওলার দল। সর্বশেষ ২০২২–২৩ মৌসুমে আর্সেনাল ২৪৮ দিন পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে থাকলেও শেষভাগে পাশার দান উল্টে যায়। আর্সেনালের অবিশ্বাস্য ছন্দপতনের বিপরীতে সিটি টানা ৮ ম্যাচ জিতে শিরোপা ধরে রাখে।

ফুটবলের পরিসংখ্যানভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ‘অপ্টা’ এবারও সিটির জন্য সুসংবাদ নিয়ে এসেছে। অপ্টার সুপার কম্পিউটার বলছে, ২০২৩–২৪ মৌসুমেও ম্যানচেস্টার সিটির প্রিমিয়ার লিগ জয়ের সম্ভাবনা বেশি। এই কম্পিউটার প্রতিটি রাউন্ড (ম্যাচ ডে) শেষে ইংল্যান্ডের শীর্ষ লিগ জয়ের সম্ভাবনার তথ্য হালনাগাদ করে থাকে।

সর্বশেষ গত মঙ্গলবার (৬ ফেব্রুয়ারি) ২৩তম রাউন্ড শেষে কম্পিউটার জানিয়েছে, গার্দিওলার সিটির চ্যাম্পিয়ন হওয়ার সম্ভাবনা ৬৬.২%, যা গত দুই মাসের মধ্যে সবচেয়ে বেশি।

২০১৬ সালে ম্যানচেস্টারের ইতিহাসে প্রথম আবির্ভাব ঘটে গার্দিওলার। তবে ম্যানসিটিকে বদলে দেওয়া সেই কারিগরের নাম আজ পুরো বিশ্ব জুড়ে সমাদৃত। আর সেজন্যই ক্লাব ইতিহাসে তাকে সেরা কোচ বললেও হয়তো ভুল হবে না।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
পদ্মাটাইমস ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
topউপরে