সাংবাদিকদের কেন এমপি পদে মনোনয়ন, জানালেন প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২৪; সময়: ২:১৭ অপরাহ্ণ |
সাংবাদিকদের কেন এমপি পদে মনোনয়ন, জানালেন প্রধানমন্ত্রী

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : এবারের সংসদে বেশ কয়েকজন সাংবাদিক ও গণমাধ্যম প্রতিষ্ঠানের কর্ণধার সংসদ সদস্য পদে মনোনয়ন পেয়েছেন। তাদের কেউ সরাসরি ভোটে নির্বাচিত আবার কেউ সংরক্ষিত নারী আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন।

সাংবাদিক ও গণমাধ্যমকর্মীদের সংসদে নেওয়ার কারণ জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

জার্মানি সফর শেষে আজকের সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা সব শ্রেণি-পেশার মানুষকে সংসদে আনার চেষ্টা করি। দেশে দীর্ঘদিন সামরিক স্বৈরশাসন চলেছে। এ জন্য গণতান্ত্রিক অনুশীলনের সুযোগ কম আমাদের ছিল। এ সময় জাতীয় সংসদে সাংবিধানিক কাজগুলো কীভাবে হয় তা সাংবাদিকদের সরাসরি দেখার সুযোগ দিতেই সাংবাদিক ও গণমাধ্যম মালিকদের সংসদে আনার চেষ্টা করা হয় বলে জানান প্রধানমন্ত্রী।

এ বিষয়ে প্রশ্ন করেন সাংবাদিক মনজুরুল ইসলাম বুলবুল। তিনি টানা চতুর্থ ও পঞ্চমবারের মতো প্রধানমন্ত্রী হওয়ায় অভিনন্দন জানান প্রধানমন্ত্রীকে। পাশাপাশি ১১জন গণমাধ্যম সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে সংসদ সদস্য মনোনয়ন দেওয়ায় ধন্যবাদ জানান। এসময় হাসতে হাসতে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘দিছি কেনো জানেন না? সাংবাদিকরা যাতে আমাদের সমালোচনা না করতে পারে, সে জন্য।’

শেখ হাসিনা বলেন, সংসদ কীভাবে কাজ করে, আমাদের সাংবিধানিক কাজ কীভাবে হয় সেটা সবার দেখা দরকার। জানা দরকার। সে জন্য সাংবাদিকদের সংসদের আনি। এ সময় প্রধানমন্ত্রী মজা করে বলেন, ‘সাংবাদিকেরা যাতে আমাদের সমালোচনা করতে না পারেন তার জন্য মনোনয়ন দিয়েছি।’

সংবাদ সম্মেলনে জার্মানি সফরে পশ্চিমা বিশ্বের একাধিক রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানের সঙ্গে বৈঠক ও সাক্ষাতের সময় বাংলাদেশের নির্বাচন নিয়ে কোনো কথা উঠেছে কি না- এমন এক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘নির্বাচন নিয়ে তাদের সঙ্গে কোনো কথা হয়নি। নির্বাচন নিয়ে তাদের কোনো উদ্বেগও নেই, মন্তব্যও নেই, প্রশ্ন নাই। নির্বাচন নিয়ে কোনো কথা হয় নাই, বেশির ভাগ কথা হয়েছে দ্বিপক্ষীয়।’

পাকিস্তানের নির্বাচন প্রসঙ্গে শেখ হাসিনা বলেন, যেসব দেশের ভোটের ফল ঘোষণা করতে ১০ / ১২ দিন লাগল সেই নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু। আর ২৪ ঘণ্টার মধ্যে যে দেশ ফলাফল দিল সেটা অবাধ, সুষ্ঠু না। এ রোগের কোনো ওষুধ আমাদের কাছে নেই। শক্তি আমাদের জনগণ, সেটাই বিশ্বাস করি। আমি কোনো দেশের নাম বলব না। আপনারা জানেন ভালো করে। এখন কেবল সমঝোতায় এসেছে। কে প্রেসিডেন্ট হবে, কে কী হবে। এ রকম আমাদের দেশে হলে তারা খুশি হতো, সেটা হয়নি দেখে তাদের মন খারাপ। তবে মন খারাপ ভালো হয়ে যাবে, অসুবিধা নেই।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘ইউরোপের দেশগুলোর সঙ্গে ভালো বন্ধুত্ব আমাদের আছে। ফ্রান্স জলবায়ু পরিবর্তনের (প্রভাব মোকাবিলার) জন্য ১ বিলিয়ন ডলার দেবে। ইউরোপের দেশগুলোর সঙ্গে আমাদের রাষ্ট্রীয় সম্পর্ক আছে, আমার ব্যক্তিগত সম্পর্ক থাকায়ও সুবিধা হয়েছে। নির্বাচন নিয়ে কেউ কোন কথা বলেনি। তারা নিজেরাই জানত নির্বাচনে আমি জিতে আসব। যারা চায় নাই, তারাই কথা ওঠায়।’

দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে বিজয়ের মধ্য দিয়ে টানা চতুর্থ মেয়াদে সরকার গঠনের পর প্রথমবারের মত সংবাদ সম্মেলন করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সংবাদ সম্মেলনে ‘মিউনিখ নিরাপত্তা সম্মেলন’-এ যোগদান উপলক্ষে সম্প্রতি জার্মানি সফরের নানা দিক নিয়ে অভিজ্ঞতা জানান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
পদ্মাটাইমস ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
topউপরে