বাঁচতে চান নাটোরের গৃহবধূ নূরজাহান

প্রকাশিত: মে ২২, ২০২৪; সময়: ৩:২১ অপরাহ্ণ |
বাঁচতে চান নাটোরের গৃহবধূ নূরজাহান

নিজস্ব প্রতিবেদক, নাটোর : ব্রেস্ট ক্যান্সারে আক্রান্ত নাটোরের গৃহবধূ নূরজাহান খাতুন বাঁচতে চান। তার শরীরে ছড়িয়ে পড়েছে ব্রেস্ট ক্যান্সারের জীবাণু।

তিনি নাটোর সদরের রামেশ্বরপুর গ্রামের আনসার সদস্য ইউসুফ আলীর স্ত্রী। এক কন্যার জননী নূরজাহান খাতুন রাজশাহী মেডিকেল কলেজের সহকারী অধ্যাপক রুপসা নূরে লায়লার অধীনে গত দুই বছর চিকিৎসা নিয়ে ইতোমধ্যে ৫ লাখ টাকা খরচ করে একবার অপারেশনও করেছেন।

তার অপারেশন সফল হয়নি। তার শরীরের বাম পাশটায় ক্যান্সারের জীবাণু আরও বেশি করে ছড়িয়ে পড়েছে। চিকিৎসকরা পরামর্শ দিয়েছেন তাকে দ্রুত দেশের বাহিরে গিয়ে উন্নত চিকিৎসা নিতে। নূরজাহানদের বাড়ি ভিটা ছাড়া কোনো জমি-জমা নেই।

স্বামী-স্ত্রী মিলে সঞ্চয় করা সকল টাকা পয়সা, গহনা সম্পদ যা ছিলো ইতোমধ্যে সব শেষ হয়ে গেছে। তাদের পরিবারের একমাত্র উপার্জনকারী তার স্বামী ইউসুফ আলীর সামান্য আয়ে তাদের সংসারের চাকা আর ঘুরছে না। তাদের সংসারে সাড়ে চার বছর বয়সী একমাত্র মেয়ে উম্মে সাদিকাও শারিরিক প্রতিবন্ধী।

বাড়িতে রয়েছে ইউসুফের বৃদ্ধা মা ও শারিরীক এবং মানসিক প্রতিবন্ধী আরেক বড় বোন। তাই পরিবারের ৫ সদস্যের খাবার যোগানোই ইউসুফের জন্য কঠিন হয়ে পড়েছে। সেখানে সকলের ওষুধ আবার স্ত্রী নূরজাহানের সুচিকিৎসার ব্যবস্থা করা তার পক্ষে একেবারেই অসম্ভব।

চিকিৎসকরা বলেছেন, নূরজাহানের ক্যান্সার এখন তৃতীয় পর্যায়ে রয়েছে। ক্যান্সারে আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে গড়ে হাজারে একজন অতি জটিল সমস্যায় ভোগেন। নূরজাহানও সেই অবস্থায় রয়েছে। তাকে বাঁচাতে হলে এখনই দেশের বাহিরে পাঠিয়ে উন্নত চিকিৎসা নেয়া জরুরী।

সেজন্য প্রয়োজন কমপক্ষে ৬-৭ লাখ টাকা। এত টাকার যোগান দেয়া তার স্বামী ও বৃদ্ধ বাবার পক্ষে কোনোভাবেই সম্ভব নয়। তাই সমাজের হৃদয়বান ও বৃত্তবানরা এগিয়ে আসলে বেঁচে যেতে পারেন সদা হাস্যজ্জ্বোল নূরজাহানের প্রাণ।

ছোট শিশু শারিরিক প্রতিবন্ধী উম্মে সাদিকাও পেতে পারেন মায়ের আদর ভালোবাসা। তাকে সাহায্য পাঠানো যাবে সোনালী ব্যাংকের নাটোর শাখায় নূরজাহান খাতুনের সঞ্চয়ী হিসাব নম্বর (৪৯০৯৮০১০১৮৭৯০) এ।

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
পদ্মাটাইমস ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
topউপরে