ইবিতে কক্সবাজার জেলা ছাত্র কল্যাণ সমিতির মিলনমেলা

প্রকাশিত: মে ২৩, ২০২৪; সময়: ৫:০৪ অপরাহ্ণ |
ইবিতে কক্সবাজার জেলা ছাত্র কল্যাণ সমিতির মিলনমেলা

নিজস্ব প্রতিবেদক, ইবি : ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) কক্সবাজার জেলা থেকে আগত শিক্ষার্থীদের নিয়ে গঠিত সামাজিক ও সেচ্ছাসেবী সংগঠন কক্সবাজার জেলা ছাত্র কল্যাণ সমিতির মিলনমেলা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৩ মে) রবীন্দ্র-নজরুল কলা ভবনের গগণ হরকরা গ্যালারিতে দিনব্যাপী নানা আয়োজনের মাধ্যমে উদযাপিত হয় দিনটি। এসময় ২০২৩-২৪ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীদের ক্রেস্ট এবং ফুল দিয়ে বরণ করে নেয়া হয়।

সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল-আজমিরের সভাপতিত্বে অনষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, কক্সবাজার জেলা কল্যাণ সমিতির উপদেষ্টা আরবি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের অধ্যাপক ড. এ.কে.এম মফিজুল ইসলাম, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর ইয়ামিন মাসুম, জজ-কোর্ট ঢাকার এডভোকেট মহি উদ্দিনসহ গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিবর্গ।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর প্রভাষক ইয়ামিন মাসুম বলেন, আমরা একা থাকলে নানা সমস্যার সম্মুখীন হতে পারি। আর এই সমস্যা এড়িয়ে সুন্দরভাবে বিশ্ববিদ্যালয় জীবন কাটানোর জন্যই এই জেলা ছাত্র কল্যাণ।

আমাদের কিভাবে চলাফেরা করতে হবে? ক্যারিয়ার কিভাবে গুছাতে হবে? ঠিকপথে আগাচ্ছি কি না? এসব বিষয়ে জেলা কল্যাণ থেকে নানাভাবে হেল্প নিয়ে সামনে আগানো যায়।

তিনি আরও বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় আসার ৩ টি প্রধান উদ্দেশ্য হলো জ্ঞান সৃষ্টি, জ্ঞান আহরণ ও জ্ঞান বিতরণ করা। বিশ্ববিদ্যালয় হলো উন্মুক্ত জ্ঞান চর্চার জায়গা। এখানে আপনি নিজেই নিজের তদারক। কেও আপনাকে ছোট্টবেলার মতো তদারকি করবে না। আপনার নিজেকে সমৃদ্ধ করে প্রতিযোগিতামূলক বিশ্বে অবস্থান তৈরি করে নিতে হবে।

আপনি শুধু ভালো সিজি নিয়ে গিয়ে ভালো জায়গায় নিয়ে যেতে পারবেন না, এর পাশাপাশি আপনাকে স্কিল বৃদ্ধি করতে হবে। তাহলে আপনি প্রতিযোগিতার বাজারে এগিয়ে থাকবেন। আপনাদেরর প্রত্যেকের মধ্যে একটা শিশু আছে।

এইটাকে লালন করতে হবে। লালন করলে নতুন কিছুর সাথে মানিয়ে নিতে পারবেন। সঠিক পরিচর্যা না করলে উদ্দেশ্য থেকে ছিঁটকে যাবেন। আশাকরি অনাগত দিনগুলো কাজে লাগাবেন এবং ৫-১০ বছরের মধ্যে আপনারানারা দেশের বড় বড় জায়গায় নেতৃত্ব দিবেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে আরবি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগে অধ্যাপক ড. এ.কে.এম মফিজুল ইসলাম বলেন, তোমাকে প্রতিদিন ক্যাম্পাসে প্রবেশ করার সাথে সাথেই ক্যাম্পাসের সারাদিনের আবহাওয়া কেমন যাবে তা বুঝে নিতে হবে। মনে রাখতে হবে তুমি সূদুর কক্সবাজার থেকে এখানে এসেছো পড়াশোনার জন্য।

যেখানে সেখানে দৌড়ে ঝাপিয়ে পড়া যাবে না। নিজে সেফ থাকতে হবে এবং অন্যকে সতর্ক থাকার মেসেজ দিতে হবে। চলাফেরায় নিজেরা সচেতন থাকতে হবে।

তিনি আরও বলেন, এখানে রাস্তাঘাটে যানবাহনে চলাকালে ৫-১০ টাকার জন্য অনেক শিক্ষার্থীদের প্রাণ যেতেও দেখেছি। তাই তোমরা এই বিষয়গুলো মাথায় রেখে সাবধান থেকে চলাফেরা করবা। তুমি শিক্ষিত মানুষ, তোমার জীবনের মূল্য অনেক।

এই অশিক্ষিত মানুষদের কাছে তোমার জীবনের মুল্য নেই। তাদের কাছে ৫ টাকা লাখ টাকার সমান। তাই জেলার সকলের সাথে ভাতৃত্বের সম্পর্ক রেখে ভবিষ্যৎ সুন্দর করে তোলার জন্য পড়াশোনা করে যাও।

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
পদ্মাটাইমস ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
topউপরে