ন্যায্য বিচারের জন্য দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন ভুমিহীন আব্দুল মজিদ

প্রকাশিত: জুন ৫, ২০২৪; সময়: ৭:২৭ অপরাহ্ণ |
ন্যায্য বিচারের জন্য দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন ভুমিহীন আব্দুল মজিদ

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, বাগমারা : ন্যায্য বিচারের জন্য দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন ভুমিহীন আব্দুল মজিদ। তিনি ন্যায্য বিচার পাবেন ? থানা পুলিশের গাফলতি ও অবহেলার কারনে অভিযোগের এক মাস পেরিয়ে গেলেও কোন ধরনের সহযোগীতা না পেয়ে ন্যায্য বিচার থেকে বঞ্চিত হচ্ছে ভুমিহীন আব্দুল মজিদ। আব্দুল মজিদ রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার কামারবাড়ী গ্রামের বাসিন্দা। সর্বশেষ তিনি ন্যায় বিচারের জন্য বুধবার (৫ জুন) বাগমারা প্রেস ক্লাবে এসে সাংবাদিকদের সহযোগীতা কামনা করেছেন।

ভুমিহীন আব্দুল মজিদের লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, এক যুগ পূর্বে ভুমিহীন হিসেবে আব্দুল মজিদ সরকারী খাস সম্পত্তি বন্দোবস্তের মাধ্যমে ভোগ দখল করে আসছিল। গত ২৬ এপ্রিল রাতের আধাঁরে ভুমিহীন আব্দুল মজিদের ওই জমির পাট ক্ষেতে ঘাসমারা ঔষুধ দিয়ে পুড়িয়ে দেয়। সকালে তিনি পাটক্ষেত দেখে হতভম্ব হয়ে পড়েন। তিনি বিষমারার বিষয়টি জানতে পেরে দুই দিন পর অর্থ্যাৎ ২৮ এপ্রিল একই এলাকার মকবুল হোসেন মৃধা, মোয়াজ্জেম হোসেন মৃধা ও নুরুল ইসলামকে আসামী করে ন্যায় বিচারের জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দেন।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহবুবুল ইসলাম ঘটনাটি জানার পর আব্দুল মজিদের লিখিত অভিযোগের সত্যতা যাচাইয়ের মাধ্যমে ব্যবস্থা নিতে বাগমারা থানার ওসিকে লিখিত ভাবে নির্দেশ দেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও’র) লিখিত অভিযোগের বিষয়ে তদন্ত করে আইনী ব্যবস্থা নিতে থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আব্দুল মজিদকে নির্দেশ দেন। অভিযোগকারী আব্দুল মজিদ জানান, পুলিশ আসামীদের দ্বারা প্রভাবিত হয়ে আমাকে ন্যায় বিচার থেকে বঞ্চিত করেছে। তিনি অবিলম্বে ঘটনার সুষ্ঠ বিচারের জন্য প্রশাসনের হতক্ষেপ কামনা করেছেন।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত মকবুল হোসেন বলেন, তারা আমাদের সমাজে হেয় করার জন্য মিথ্যা অভিযোগ দাখিল করেছেন। তাদের সাথে জমিজমা নিয়ে আমাদের বিরোধ রয়েছে। কে বা কাহারা তাদের ফসলে বিষ দিয়েছে তা আমাদের জানা নেই। অথচ তিনি আমাদের নামে বিভিন্ন স্থানে মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে হয়রানী করেছেন বলে তিনি দাবী করেছেন।

অপর দিকে যোগাযোগ করা হলে বাগমারা থানার ওসি অরবিন্দ সরকার জানান, ঘটনাটি অনেক দিন পূর্বের। বিষয়টি আমার মনে নেই, খোঁজ খবর নিয়ে বিষয়টি আপনাকে অবগত করতে পারবেন বলে তিনি জানিয়েছেন।
ইউসুফ সরকার

পদ্মাটাইমস ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
topউপরে