সুজানগরে আওয়ামী লীগের সমর্থককে কুপিয়ে জখম

প্রকাশিত: জুন ৮, ২০২৪; সময়: ৭:৫৫ অপরাহ্ণ |
সুজানগরে আওয়ামী লীগের সমর্থককে কুপিয়ে জখম

নিজস্ব প্রতিবেদক, সুজানগর : পাবনার সুজানগরে মাহফুজার রহমান খান নামে এক ব্যক্তিকে কুপিয়ে জখম করেছে প্রতিপক্ষের লোকজন। সে সুজানগর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী পরাজিত চেয়ারম্যান প্রার্থী উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীনুজ্জামানশাহীনেরকর্মী বলে জানা গেছে।

উপজেলার মানিকহাট ইউনিয়নের বিক্রমাদিত্য এলাকায় বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে প্রকাশ্যে কুপিয়ে জখম করার এ ঘটনা ঘটে। এ সময় স্থানীয় লোকজন গুরুতর আহত অবস্থায় মাহফুজার রহমান খানকে সুজানগর হাসপাতালে, পরে পাবনা জেনারেল হাসপাতাল এবং অবস্থার অবনতি হলে পরবর্তীতে তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় আহত মাহফুজার রহমান খানের স্ত্রী মোছা.তাসলিমা খাতুন বাদী হয়ে গতকাল মো.জীবন নামে এক ব্যক্তিসহ ৬ জনকে আসামী করে সুজানগর থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

থানায় দায়েরকৃত লিখিত এজাহারে বাদী উল্লেখ করেন, সম্প্রতি অনুষ্ঠিত হওয়া সুজানগর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে তার স্বামী মাহফুজার রহমান খান পরাজিত চেয়ারম্যান প্রার্থী উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীনুজ্জামান শাহীনের আনারস প্রতীকের সমর্থনে ভোটারদের কাছে ভোট চাওয়ার বিষয়টিকে কেন্দ্র করে বিবাদীদের সাথে মনোমালিন্যের সৃস্টি হয়। নির্বাচনে শাহীনুজ্জামানরে পরাজয় হলে আমার স্বামী বিবাদীদের ভয়ে নিজ বাড়ী থেকে অন্যত্র গিয়ে জীবন যাপন করতে থাকে। এমতাবস্থায় গত বৃহস্পতিবার আমার স্বামী নিজ বাড়ীতে এসে বাড়ীর পাশে একটি মেহগুনির বাগানে বসে থাকা অবস্থায় অতর্কিত হামলা চালিয়ে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করে বিবাদীরা ।পরে স্থানীয়রা উদ্ধার করে আমার স্বামীকে হাসপাতালে প্রেরণ করে।

বিজয়ী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল ওহাবের কর্মী-সমর্থকরা এ হামলা চালিয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন মামলার বাদী। এদিকে এ ধরণের হামলার ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে সুজানগর উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান শাহীনুজ্জামান শাহীন বলেন, নির্বাচনে জয়-পরাজয় থাকবে,একজন মানুষ তার পছন্দের প্রার্থীকে সমর্থন করতেই পারে। তাই বলে তাকে হত্যার উদ্দেশ্যে হামলা চালিয়ে এভাবে রক্তাক্ত জখম করতে হবে?।

তিনি এ ঘটনায় দোষীদের দ্রুত গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের নিকট। এ বিষয়ে সুজানগর থানার ওসি জালাল উদ্দিন বলেন, মামলার ভিত্তিতে আসামীদের গ্রেফতার করতে পুলিশ অভিযান শুরু করেছে। তবে রাজনৈতিক নাকি পারিবারিক বিরোধের কারণে এ ঘটনা ঘটেছে তদন্তের পরে বিস্তারিত জানা যাবে।

পদ্মাটাইমস ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
topউপরে