মহাদেবপুরে বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি অপসারণের দাবীতে মানববন্ধন

প্রকাশিত: জুন ২৭, ২০২৪; সময়: ৪:০৯ অপরাহ্ণ |
মহাদেবপুরে বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি অপসারণের দাবীতে মানববন্ধন

নিজস্ব প্রতিবেদক, মহাদেবপুর : নওগাঁর মহাদেবপুরে মালাহার বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে নিয়মবহির্ভুতভাবে আহসান হাবীবকে ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি করে কমিটি গঠন করায় তাকে অপসারণের দাবীতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে বিদ্যালয় সংলগ্ন রাস্তায় ঘন্টাকালব্যাপী অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে বক্তব্য দেন সাবেক প্রধান শিক্ষক আলহাজ্ব গিয়াস উদ্দীন, মুক্তিযোদ্ধা লিয়াকত আলী, রনজিৎ মাষ্টার, রুহুল আমিন, বিদ্যালয়ের অভিভাবক আ: হাই, মোকলেছুর রহমান, এরশাদুল ইসলাম, আশরাফুল আলম, আঃ মালেক, বেলাল, রফিকুল ইসলাম, মিনাল, তোতারাম, রঘুনাথ, অতুল, ম্যানেজিং কমিটির সদস্য ইসলাফিল, চঞ্চলসহ শতাধিক অভিভাবক ও এলাকাবাসী।

বক্তারা প্রক্রিয়াধীন সভাপতি আহসান হাবীবের চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য তুলে ধরে বলেন, তিনি একজন দুশ্চরিত্রবান লোক। তার নিজের স্ত্রী থাকা সত্ত্বেও স্ত্রীর আপন বোনের সাথে পরকীয়ায় লিপ্ত হওয়ার বিষয়টি জানাজানি হলে তাকেও বিয়ে করতে বাধ্য হন।

বর্তমানে দুই বোনকে নিয়েই সংসার করছেন তিনি। যার কুনজর থেকে নিজের স্ত্রীর আপন বোন রক্ষা পায়নি তিনি সভাপতি থাকলে এই বিদ্যালয়ের কোমলমতি শিক্ষার্থীরা কতটুকু নিরাপদ থাকবে এমন প্রশ্ন তোলেন অভিভাবকরা।

তারা বলেন যে, বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি গঠন নীতিমালার ১৬ নং ক্রমিকের গ ধারায় স্পষ্ট উল্লেখ আছে “সংশ্লিষ্ট বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের স্বার্থ পরিপন্থী বা উহার সুনাম নষ্ট হয় এইরুপ কোন কর্মকান্ডে অংশগ্রহণ করেন বা কোনভাবে উহাতে সহায়তা করেন” এমন কোন ব্যক্তি সভাপতি হওয়ার বা থাকার ক্ষেত্রে অযোগ্য।

তারা আরও বলেন, একটি স্বার্থানেষী মহল নিজেদের স্বার্থ উদ্ধারের জন্য বিভিন্ন দপ্তরে ভুল বুঝিয়ে অসত্য তথ্য উপস্থাপন করে একজন চরিত্রহীন ব্যক্তিকে সভাপতি করার পাঁয়তারা চালিয়ে আসছে।

তাই এমন অসৎ চরিত্রের মানুষকে সভাপতির পদ থেকে অপসারণ করে সৎ, যোগ্য ও আদর্শবান ব্যক্তিকে সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব দেয়ার জন্য এমপি মহোদয় ও মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ডের বিদ্যালয় পরিদর্শক মহোদয়ের আশু দৃষ্টি কামনা করেছেন অত্র বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও ম্যানেজিং কমিটির সদস্যবৃন্দ।

আহসান হাবীবের কাছে জানতে চাইলে মোবাইল ফোনে তিনি এ ব্যাপারে কথা বলতে রাজী হননি। এ ব্যাপারে মালাহার বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক শাহিদা খানমের মোবাইলে বারবার ফোন দিলেও তিনি তা রিসিভ করেননি।

পদ্মাটাইমস ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
topউপরে