ধামইরহাটে প্রতিপক্ষের শত্রুতার বিষে পুড়লো আখক্ষেত

প্রকাশিত: জুন ৩০, ২০২৪; সময়: ১২:০১ অপরাহ্ণ |
ধামইরহাটে প্রতিপক্ষের শত্রুতার বিষে পুড়লো আখক্ষেত

নিজস্ব প্রতিবেদক, ধামইরহাট : নওগাঁর ধামইরহাটে প্রতিপক্ষের শত্রুতার বিষে পুড়লো কৃষকের আখক্ষেত। ক্ষতিকারক কীটনাশক স্প্রে করে ১ একর জমির সম্পূর্ণ আখ বিনষ্ট হয়ে গেছে। ভুক্তভোগী আব্দুল মান্নানের ছেলে শফিউল ইসলাম ন্যায় বিচারের আশায় ধামইরহাট থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, ২০০১ সালে ক্রয়কৃত সম্পত্তি পূর্ব রঘুনাথপুর গ্রামের মৃত মনছের আলীর ছেলে আব্দুল মান্নান অদ্যাবধি পর্যন্ত চাষাবাদ করে আসছেন। চাষাবাদকালে গত ২৬ জুন রাতের বেলায় প্রতিপক্ষ উত্তর জাহানপুর গ্রামের মাসুদ কাদের জুয়েলের নির্দেশে প্রতিপক্ষ নুর ইসলাম, দিলিপ, জুনাস ও আব্রাহাম কাউয়া জমিতে কীটনাশক স্প্রে করতে থাকাকালে স্থানীয় আব্দুর রশিদ ঘটনা প্রত্যক্ষ করেন।

পরদিন প্রত্যক্ষদর্শী ও লোকমুখে ঘটনা জানতে পেরে জমির মালিক আব্দুল মান্নান আখক্ষেতে গিয়ে দেখেন তাদের সম্পূর্ণ আখ বিষক্রিয়ায় বিবর্ণ আকার ধারণ করেছে, এতে প্রায় ২ লাখ ৪০ হাজার টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে ভুক্তভোগী দাবী করেন।

ইতিপূর্বেও বিবাদীগণ প্রকাশ্য দিবালোকে ভুক্তভোগী আব্দুল মান্নানের জমির আখক্ষেতে অগ্নিকান্ড ঘটায়, পরে ৯৯৯ এ পুলিশের সহযোগিতায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আসে।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত মাসুদ কাদের জুয়েল মুঠোফোনে জানান, ‘জমির মূল মালিক মনছের আলী হেলাল হোসেনের নিকট বিক্রয় করলে পরবর্তীতে হেলাল হোসেন আজিজুল হকের নিকট বিক্রয় করে, আমার স্ত্রী নাজমা বেগম আজিজুলের নিকট ওই জমিটি ক্রয় করে ২০২৩।

আমি কারও জমিতে বিষ দেইনি, বরং তারাই আমার জমিতে বিষ দিয়েছে, তবে আখ আমিও লাগাইনি, মান্নান সাহেবও লাগাইনি, প্রাকৃতিক ভাবে গজিয়েছে।’

ধামইরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হাবিবুর রহমান বলেন, ‘অভিযোগটি হাতে পেলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

পদ্মাটাইমস ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
topউপরে