ঘুষি মেরে নারী কাউন্সিলের ঠোঁট ফাটালেন পুরুষ কাউন্সিলর

প্রকাশিত: জুলাই ৪, ২০২৪; সময়: ৫:৪৮ অপরাহ্ণ |
ঘুষি মেরে নারী কাউন্সিলের ঠোঁট ফাটালেন পুরুষ কাউন্সিলর

নিজস্ব প্রতিবেদক, কুষ্টিয়া : কুষ্টিয়া পৌরসভায় কথা কাটাকাটি নিয়ে ঘুষি মেরে নারী কাউন্সিলের ঠোঁট ফাটিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে আরেক কাউন্সিলর কৌশিক আহম্মেদ বিচ্ছুর বিরুদ্ধে। এ নিয়ে হুলুস্থুল শুরু হয় যায় পৌরসভা জুড়ে। থানা থেকে পুলিশের একাধিক দল এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। জটলা বেঁধে যায় পৌরসভার মধ্যে।

বৃহস্পতিবার দুপুর ১টার দিকে পৌরসভায় কাউন্সিলরদের মিলনায়তনে এমন ঘটনা ঘটে। সে সময় অনেক কাউন্সিলর সেখানে উপস্থিত ছিলেন। তাদের সামনেই হামলা হয়।

নারী কাউন্সিলের নাম মোছাম্মত পারভীন হোসেন। তিনি কুষ্টিয়া পৌরসভার সংরক্ষিত ওয়ার্ড ১৯,২০ ও ২১ এর কাউন্সিলর। আর অভিযুক্ত কাউন্সিললের নাম কৌশিক আহম্মেদ। তিনি ৮ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর।

নারী কাউন্সিলর বলেন, নামাজের আগ দিয়ে কাউন্সিলর কৌশিক নামাজের উদ্দেশে মসজিদের দিকে যাচ্ছিল। এ সময় আমি পেছন থেকে বাব-সোনা বলে ডাক দিই। এরপর তিনি এসে আমি নাকি তাকে গালি দিয়ে ডাক দিয়েছি এই বলেই কিলঘুষি মারতে থাকে। ঘুষি মেরে আমার ঠোঁট ফাটিয়ে দিয়েছে। এ নিয়ে আমি তাকে ছাড়ব না। তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে। তিনি বলেন কাউন্সিলর বিচ্ছু পৌরসভায় একচ্ছত্র আধিপত্য বিস্তারের চেষ্টা করছে। তার দাপটে অন্য কাউন্সিলররা কোণঠাসা হয়ে থাকেন।

আর কৌশিক বলেন, নারী কাউন্সিলর মদ পান করে এখানে আসেন প্রতিদিন। সে আমাকে বিশ্রিভাষায় গালি দিয়ে ডাক দেন। আমি এর প্রতিবাদ করতে সে চায়ের কাপ ছুড়ে মারলে সেই কাপ আমার গায়ে এসে লাগে। এরপর আমি তাকে ঘুষি মেরেছি। তিনি বলেন, মদ্য পান করে এসে প্রতিদিন সে ঝামেলা করে।

এদিকে মদ পান করার কথা বললে উত্তেজনা জড়িয়ে পড়ে। নারী কাউন্সিলের স্বজনরা উত্তেজিত হয়ে কৌশিককে মারতে যায়। এরপর পুলিশ তাকে সরিয়ে দেয়।

কাউন্সিলর পারভিন হোসেন কুষ্টিয়া শহর আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক।

প্রত্যক্ষদর্শি অন্য কাউন্সিলররা জানান, কৌশিক ইচ্ছাকৃতভাবে নারী কাউন্সিলর পারভিনকে ঘুঁষি মেরেছেন। ঘুষি মেরে সে অন্যায় করেছে। তার বিচার হবে। এ ধরনের ঘটনা কাম্য নয় বলে জানান তারা।

পুলিশ জানান, নারী কাউন্সিলরের ওপর হামলারঅভিযোগ পেয়ে আমরা এসেছি। এখন উত্তেজনা নেই। দুই পক্ষকে থানায় ডাকা হয়েছে।

পৌর কাউন্সিলর কৌশিক আহমেদ বিচ্ছুর বিরুদ্ধে কুষ্টিয়া শহরের বড়বাজার এলাকায় চাঁদাবাজি সহ নানা অভিযোগ রয়েছে। ৮ নম্বর ওয়ার্ডের অনেক মানুষ বিচ্ছুর ভয় সবসময় তটস্থ থাকে।

পদ্মাটাইমস ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
topউপরে