আরএমপি কাশিয়াডাঙ্গা থানার অভিযানে দুই অপহরণকারী গ্রেপ্তার

প্রকাশিত: জুলাই ৪, ২০২৪; সময়: ১০:৩৮ অপরাহ্ণ |
আরএমপি কাশিয়াডাঙ্গা থানার অভিযানে দুই অপহরণকারী গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক : নাটোর জেলার বাগাতিপাড়া থানার দয়ারামপুর এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে দুই অপহরণকারীকে গ্রেপ্তার করেছে আরএমপি’র কাশিয়াডাঙ্গা থানা পুলিশ। এসময় আসামিদের কাছ থেকে দুই অপহৃত ব্যক্তি উদ্ধার হয়।

গ্রেপ্তারকৃত আসামিরা হলেন মো: ফজলুল কাদের পলাশ (৩২) ও মো: শাহেদ আহমেদ (৩২)। ফজলুল নাটোর জেলার বাগাতিপাড়া থানার দয়ারামপুর এলাকার মো: আবুল হাসেমের ছেলে ও শাহেদ একই জেলার লালপুর থানার করিমপুর এলাকার মো: মেহের আলীর ছেলে।

ঘটনা সূত্রে জানা যায়, নওগাঁ  জেলার নিয়ামতপুর থানার ইকরাপুর গ্রামের শ্রী নীশিত কুমার। তিনি বর্তমানে রাজশাহী মহানগরীর কাশিয়াডাঙ্গা থানার হড়গ্রাম কাঁচা বাজার এলাকায় বসবাস করেন। নীশিত কুমার একজন ব্যবসায়ী। তিনি পূর্বে একটি এনজিওর চাকরির পাশাপাশি ব্যবসা করতেন। অপর দিকে আসামি ফজলুল নগরীর শাহমখদুম থানার আম চত্বর এলাকায় বসবাস করতো। সেই সুবাদে তাদের দুজনের মধ্যে পরিচয় হয়।

গত ২ জুলাই সকাল ১০ টায় আসামি ফজলুল মোবাইল ফোনে ব্যবসার কথা বলে শ্রী নীশিত কুমারকে ডাকে। তখন নীশিত কুমার ব্যাংকে যাওয়ার কথা বলে বাসা থেকে বের হয়। কিন্তু সময়মতো বাড়ি ফিরে না আসলে তার স্ত্রী মোবাইল ফোনে কল করে ফোন বন্ধ পান। তখন তার স্ত্রী ভিকটিম নীশিত কুমারকে অনেক খোঁজাখুঁজি করে না পেয়ে আরএমপি’র কাশিয়াডাঙ্গা থানায় একটি নিখোঁজ জিডি করেন। পরবর্তীতে আসামি ফোন করে ৪০ হাজার টাকা মুক্তিপণ দাবি করে।

আরএমপি’র কাশিয়াডাঙ্গা বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার (অতিরিক্ত ডিআইজি পদে পদোন্নতিপ্রাপ্ত) বিভূতি ভূষন বানার্জী, পিপিএম-এর সার্বিক তত্ত্বাবধানে কাশিয়াডাঙ্গা থানা পুলিশের একটি টিম ভিকটিমকে উদ্ধার আসামিদের গ্রেপ্তারে অভিযানে শুরু করে।

কাশিয়াডাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ মো: এমরান হোসেনের দিকনির্দেশনায় এসআই মীর আরমান হোসেন ও তাঁর টিম আরএমপির সাইবার ক্রাইম ইউনিটের দেওয়া তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় আসামিদের অবস্থান শনাক্ত করে। এরপর  গতকাল ৩ জুলাই সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টায় নাটোর জেলার বাগাতিপাড়া থানার দয়ারামপুর এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে আসামিদের গ্রেপ্তার করে। এসময় আসামিদের কাছ থেকে ভিকটিম নীশিত কুমার ও তার বন্ধু মোঃ শহিদুজ্জামান জনিকে উদ্ধার করে।

গ্রেপ্তারকৃত আসামিদের জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, ভিকটিম নীশিত কুমার ও তার বন্ধু শহিদুজ্জামানসহ তাদের আরেক বন্ধু নাজমুলকে মুক্তিপণের জন্য কৌশলে ডেকে আটকে রাখে। সেখানে তাদের ভয়ভীতি দেখিয়ে চাঁদাদাবি করে। সেখান থেকে নাজমুল কৌশলে পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়।

গ্রেপ্তারকৃত আসামিদের বিরুদ্ধে কাশিয়াডাঙ্গা থানায় মামলা রুজু করে বিজ্ঞ আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

 

পদ্মাটাইমস ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
topউপরে