অ্যান্ড্রয়েড ১৪ এ চলবে না যে অ্যাপগুলো

প্রকাশিত: মার্চ ১৪, ২০২৩; সময়: ১০:৫৭ পূর্বাহ্ণ |
অ্যান্ড্রয়েড ১৪ এ চলবে না যে অ্যাপগুলো

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : মার্চের শুরুতে অ্যান্ড্রয়েড ১৪ এর প্রথম ডেভেলপার প্রিভিউ প্রকাশ করেছে অভিজ্ঞ সার্চ ইঞ্জিন কোম্পানি গুগল।

এর কোডনেম হলো UpSideDownCake, এবং ওএসের নতুন সংস্করণে অনেক নতুন বৈশিষ্ট্য এবং পরিবর্তন আসবে।

এটি আরও ভালো ব্যাটারি লাইফ, শক্তিশালী সুরক্ষা বৈশিষ্ট্য, বড় স্ক্রিন ডিভাইসগুলোর জন্য সমর্থন এবং অন্যান্য দুর্দান্ত বৈশিষ্ট্যগুলো পাবে।

আপনি যদি মেমরি বাড়ানোর জন্য স্পিড বুস্টার অ্যাপগুলো ব্যবহার করেন, তাহলে আপনি সেগুলো নতুন ওএসে ব্যবহার করতে পারবেন না।

গুগলের শেয়ার করা নথি অনুসারে, টাস্ক কিলার এবং স্পিড বুস্টার অ্যাপের জন্য ব্যবহৃত সাধারণ এপিআই অ্যান্ড্রয়েড ১৪-এ বন্ধ করা হবে।

সিস্টেম অ্যাপগুলো এই এপিআইগুলো ব্যবহার করতে পারে। এর মানে হলো যে টাস্ক কিলার এবং অ্যাপগুলো যেগুলো ফোনের গতি বাড়ানোর দাবি করে এবং মেমরি থেকে অ্যাপগুলো সরিয়ে দেয় সেগুলো অকেজো হবে।

অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসে এই অ্যাপগুলো ‘KILL_BACKGROUND_PROCESSES’ অনুমতি ব্যবহার করে ব্যাকগ্রাউন্ড প্রক্রিয়া বা অন্যান্য অ্যাপ বা কাজ বন্ধ করে।

কিন্তু অ্যান্ড্রয়েড ১৪ এর আগমনে অ্যাপটিকে তার প্রক্রিয়া বন্ধ করার অনুমতি দেবে। অন্য কোনো অ্যাপে এগুলোর কোনো প্রভাব পড়বে না।

গত কয়েক বছরে, ‘মেমরি বুস্টার’ এবং ‘স্মার্ট বুস্টার’-এর মতো অনেক টাস্ক কিলার এবং মেমরি কিলার অ্যাপ গুগল প্লে স্টোরে একটি শক্তিশালী প্রবেশ করেছে।

শাওমি, রিয়েলমি, অপোসহ অনেক স্মার্টফোন নির্মাতারা এমন অ্যাপও প্রি-ইনস্টল করে যা মেমরি থেকে অন্য অ্যাপগুলোকে সরিয়ে নেয়, কিন্তু সেগুলিকে প্রায়ই সিস্টেম অ্যাপ হিসেবে লেবেল করা হয়। এর মানে হলো যে এই অ্যাপগুলো অ্যান্ড্রয়েড ১৪ এ কাজ করতে সক্ষম হবে।

লাভের পরিবর্তে ক্ষতি

ব্যবহারকারীরা সুবিধার জন্য এই অ্যাপগুলো ব্যবহার করে, কিন্তু উপকারের পরিবর্তে তারা বেশি ক্ষতি করে। এই টাস্ক কিলার অ্যাপগুলো মেমরি গ্রহণ করে এবং এটি ব্যাটারি খরচ বাড়ায়।

কারণ অ্যান্ড্রয়েড দ্বারা ক্যাশ করা মেমরি থেকে অ্যাপটি লোড করার পরিবর্তে এটি সিস্টেমের মাধ্যমে পুনরায় লোড করতে হবে।

গুগল নীতি

গুগল প্লে স্টোরে ইতোমধ্যেই বিভ্রান্তিকর তথ্য এবং ডিভাইসের কর্মক্ষমতা বাড়ানোর মতো বিভ্রান্তিকর দাবি করা অ্যাপগুলোর জন্য একটি নীতি রয়েছে। যাইহোক, প্রযুক্তি সংস্থা এখনো সেই সমস্ত অ্যাপগুলোর বিষয়ে কোনো ব্যবস্থা নেয়নি যা অ্যাপগুলোকে মেমরি থেকে সরিয়ে কর্মক্ষমতা বাড়ানোর দাবি করে।

তবে অ্যান্ড্রয়েড ১৪ এর সঙ্গে জিনিসগুলো পরিবর্তিত হতে পারে এবং কোম্পানি প্লে স্টোর নীতি লঙ্ঘন করে এমন অ্যাপগুলোর বিরুদ্ধে ক্র্যাক ডাউন শুরু করতে পারে।

পদ্মাটাইমস ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
topউপরে