আত্রাই ও রাণীনগর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ১৩৭ ভোটকেন্দ্রে ভাগ্য নির্ধারণ হবে ৬ জনের

প্রকাশিত: মে ২৮, ২০২৪; সময়: ৭:৩৮ অপরাহ্ণ |
আত্রাই ও রাণীনগর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ১৩৭ ভোটকেন্দ্রে ভাগ্য নির্ধারণ হবে ৬ জনের

নাজমুল হক নাহিদ, আত্রাই (নওগাঁ) : আসন্ন ৬ষ্ঠ উপজেলা পরিষদ তৃতীয় ধাপের নির্বাচনে নওগাঁর রাণীনগর ও আত্রাই উপজেলায় ১৩৭টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ২৯মে বুধবার। দুই উপজেলায় ৩লাখ ৩০ হাজার ১শত ৫২জন ভোটার আছে। ওই দিন সকাল ৮টা থেকে ভোট গ্রহণ শুরু হয়ে চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। এই জন্য নেওয়া হয়েছে সকল প্রস্তুতি।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, শান্তিপূর্ণ ও উৎসবমূখর পরিবেশে নির্বিঘ্নে ভোটগ্রহণ সম্পন্ন করতে ব্যাপক নিরাপত্তাসহ সকল ধরণের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। কোনো কেন্দ্রে বিশৃঙ্খলা দেখা দিলে তাৎক্ষনিক আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কেউ যেন আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটাতে না পারেন সেজন্য ভোট কেন্দ্রের সবগুলোতে পুলিশ প্রশাসন সর্বদা নজর রাখছেন। এছাড়াও সাদা পোশাকে পুলিশ, র‌্যাব বিজিবি’র সমন্বয়ে মোবাইল টীম, ষ্ট্রাইকিং টীম, ষ্ট্রাইকিং রিজার্ভ টীম এবং সিনিয়র কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে আরেকটি টীম সার্বক্ষনিক টহলরত থাকবে।

রাণীনগর উপজেলায় ৮টি ইউনিয়নে ৭০ টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এ উপজেলায় মোট ভোটার সংখ্যা ১ লাখ ৬০ হাজার ৫ জন। বুধবার অনুষ্ঠিত ভোটে চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান তিনটি পদে মোট ২১ জন প্রার্থী। একজন প্রত্যাহার করে নেওয়ায় চেয়ারম্যান পদে ৮ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৭ জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৫ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন। তারা সকলেই জয়ের আশা নিয়ে ভোটারদের দারে দারে গিয়ে নানান প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। তবে এবার যুবকদের মধ্যে নতুন চমক হতে পারে বলে মনে করছেন সাধারণ ভোটাররা।

আত্রাই উপজেলায় একই পরিমাণ ইউনিয়নে ৬৭টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। ১লাখ ৭০ হাজার ১’শ ৫২ জন ভোটারের মন জয় করতে ৮ চেয়ারম্যান, ৩পুরুষ ও ৪মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী ভোটের দাবি নিয়ে দিন রাত সমান করে ভোটারের দারে দারে ঘুরেছেন। দিয়েছেন নানান প্রতিশ্রুতি। ৮ চেয়ারম্যান প্রার্থীর মধ্যে ৭ জনই নতুন মুখ। ভোটারদের ধারণা দীর্ঘ ১৫ বছর ধরে এক জনের দখলে থাকা চেয়ার অন্যের দখলে যাওয়ার সম্ভাবনা আছে।

রাণীনগর ও আত্রাই উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা উম্মে তাবাসসুম ও সঞ্চিতা বিশ্বাস বলেন, রাণীনগর উপজেলার ৭০টি ভোট কেন্দ্রের মধ্যে ২৩টি কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ (গুরুত্বপূর্ণ) হিসাবে চিহ্নিত করা হয়েছে। অবশ্য ভোট নির্বিঘ্নে করতে এসব কেন্দ্রে বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। ভোটাররা যাতে উৎসবমুখর পরিবেশে তাদের পছন্দের প্রার্থীকে ভোটাধিকার প্রয়োগ করে নিরাপদে বাড়ী ফিরতে পারেন সেব্যাপারে সকল প্রস্তুতি গ্রহণ করা হচ্ছে।

নিরাপত্তার বিষয়ে জানতে চাইলে সুষ্ঠু অবাধ ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের জন্য আমরা প্রস্তুত জানিয়ে নওগাঁর পদোন্নতিপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার গাজিউর রহমান বলেন, ভোটাররা কেন্দ্রে এসে যেন সুন্দরভাবে উৎসবমূখর পরিবেশে ভোট দিতে পারে সেই জন্য আমরা সকল ধরনের ব্যবস্থা করেছি। নির্বাচন কেন্দ্রীক কয়েক স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্রগুলোতে নেওয়া হয়েছে বাড়তি নিরাপত্তা। রাণীনগরকে একটি সেক্টর করে দুটি সেক্টরে বিভক্ত করা হয়েছে। এখানে আমি সেক্টর কমান্ডার হিসেবে সর্বক্ষনিক দায়িত্ব পালন করবো। মোটকথা ভোটারদের নিরাপত্তার স্বার্থে আমরা সকল ধরনের প্রস্তুতি গ্রহণ করেছি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
পদ্মাটাইমস ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
topউপরে