প্রেমে ব্যর্থ হয়ে প্রাণ দিয়ে প্রেমের সমাপ্তি

প্রকাশিত: মার্চ ২৮, ২০২৩; সময়: ১০:৩৬ পূর্বাহ্ণ |
প্রেমে ব্যর্থ হয়ে প্রাণ দিয়ে প্রেমের সমাপ্তি

নিজস্ব প্রতিবেদক, গুরুদাসপুর : নাটোরের গুরুদাসপুরে স্কুল পড়ুয়া এক মেয়ের প্রেমে ব্যর্থ হয়ে ফেসবুক লাইভে এসে গলায় ফাঁসি নিয়ে আত্মহত্যা করেছে রঞ্জু আহমেদ (১৫) নামের এক দশম শ্রেনীর শিক্ষার্থী।

রোববার (২৬ মার্চ) দিবাগত রাত ১ টার দিকে নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার মশিন্দা ইউনিয়নের কাছিকাটা বিলবিয়াসপুর গ্রামে নিজের শয়নঘরে রশিতে ঝুলে আত্মহনন করে রঞ্জু। মৃত রঞ্জু আহমেদ ওই গ্রামের হরফ মোল্লার ছেলে। পরে পরিবারের লোকজন টের পেয়ে দরজা ভেঙ্গে রঞ্জুর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে। আইনি প্রক্রিয়া শেষে সোমবার (২৭ মার্চ) সকালে রঞ্জুর লাশটি পরিবারের কাছে হস্তান্তর করে পুলিশ।

ইংরেজিতে লেখা ‘রঞ্জু আহমেদ’ নামের ফেসবুক আইডির লাইভে দেখা যায়- স্কুল ছাত্র রঞ্জু লাইভে আসার পর ঘরের চালের বাঁশের সাথে ঝুলানো রশিতে ঝুলে যান। রশিতে ঝোলার কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে রঞ্জু হাত-পা নাড়া দিয়ে বাঁচার অনেক চেষ্টাও করে। এরপর ৩ মিনিটের মাথায় সে মারা যায়। এসময় তার ফেসবুক বন্ধুরা লাইভের কমেন্টে আত্মহত্যা না করার জন্য অনুরোধ জানান। কেউ কেউ তার পরিবারের কাছে বিষয়টি জানানোর জন্য বলেন।

আত্মহত্যার আগে রঞ্জু তার ফেসবুক আইডিতে পর পর কয়েকটি স্ট্যাটাস দেন। মৃত্যুর ৪দিন আগে দেওয়া একটি স্ট্যাটাসে লেখেন, ‘ছেড়ে যাওয়ার কোনো কারণ ছিলনা, তবে থেকে যাওয়ার জন্য যতেষ্ট কারণ ছিল, তাও তুমি থাকলে না।’ ৬ দিন আগের একটি স্ট্যাটাসে লেখেন, দোয়া করি প্রিয়! ভালোবাসার মানুষটাকে না পাওয়ার অসুখটা তোমার না হোক।’

এছাড়া মৃত্যুর আগে ফেসবুকে দেওয়া স্ট্যাটাসে তিনি লেখেন- ‘সবাই ভালো থেকো আমিও ভালো থাকবো ওপারে’, মৃত্যু-হ্যাস ট্যাগ দিয়ে লেখেন, ‘শেষ আয়োজন! এবং শেষ ঠিকানা! কখন জানি মৃত্যু এসে বলবে, চলো এবার যাওয়া যাক, জিন্দা থাকলে নিন্দাতো হবেই, সাদা কাপড়ে জড়িয়ে গেলে ভালোবাসার মানুষের অভাব হয়না। সময় যখন থমকে যাবে শেষ হবে সফর! বিদায় দেবে বন্ধু-স্বজন, স্বাগত জানাবে পরপার।’ আরেকটি স্ট্যাটাসে লেখেন, সরি বাবা কত কষ্ট দিয়েছি আপনাকে, হয়তো আমাকে নিয়ে আপনার অনেক স্বপ্ন ছিল।
মৃত রঞ্জুর চাচাতো ভাই সোহেল রানা বলেন, রঞ্জুকে বেশ কয়েকদিন ধরেই উদাসিন মনে হচ্ছিল। কিন্তু কেউ বুঝতে পারেনি সে আত্মহত্যার পথ বেছে নেবে। তবে রঞ্জুর পরিবার প্রেমের কারণে আত্মহত্যার ব্যপারে কোনো মেয়েকে দায়ি করেননি।

গুরুদাসপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আব্দুল মতিন জানান, আত্মহত্যাকারী রঞ্জুর ঘর থেকে রক্তমাখা গোলাপসহ একটি ডায়েরি উদ্ধার করা হয়েছে। এঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে।

পদ্মাটাইমস ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
topউপরে