বাঘায় আসামী গ্রেপ্তারের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল

প্রকাশিত: জুন ২৫, ২০২৪; সময়: ৭:৫০ অপরাহ্ণ |
বাঘায় আসামী গ্রেপ্তারের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, বাঘা : রাজশাহীর বাঘায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ,বাঘা উপজেলা দলীয় কার্যালয়ে আ’লীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর আলোচনা সভা শেষে বিক্ষোভ মিছিল করেছেন। উপজেলা আ’লীগের সাধারন সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম বাবুলকে কুপিয়ে জখমের অভিযোগে দায়ের করা মামলার প্রধান আসামী, জেলা আ’লীগের সদস্য বাঘা পৌর মেয়র আক্কাছসহ আত্নগোপনে থাকা আসামীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করে বাঘা উপজেলা আওয়ামীলীগ।

সোমবার (২৪ জুন) বিকেল ৫ টায় উপজেলা আ’লীগের দলীয় কার্যালয়ে উপজেলা আ’লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ওয়াহেদ সাদিক কবিরের সঞ্চালনায় আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন, উপজেলা আ’লীগের সাবেক যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম মন্টু, বাঘা পৌর আ’লীগের সভাপতি আব্দুল কুদ্দুস সরকার, সাধারণ সম্পাদক মামুন হোসেন, আড়ানী পৌর মেয়র মুক্তার আলী, আড়ানী পৌর আ’লীগ এর সভাপতি মতিউর রহমান মতি, সাধারণ সম্পাদক রিবন আহাম্মেদ বাপ্পী, উপজেলা যুবলীগের যুগ্ন সাধারন সম্পাদক বাঘা পৌর সভার সাবেক প্যানেল মেয়র শাহিনুর রহমান পিন্টু, আ’লীগ নেতা শাহীদুজ্জামান সাইদ ,মজিবুর রহমান, সামিউল ইসলাম (নয়ন) সরকারসহ ৪ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। পরে সন্ধ্যার আগে বিক্ষোভ মিছিল করেন তারা। এ সময় রাজপথে বিভিন্ন শ্লোগান দিয়ে গ্রেপ্তারের দাবি জানান। এ সময় তারা পৌর মেয়রের অতীত কর্মকান্ডও তুলে ধরেন।

জানা যায়, গত শনিবার( ২২ জুন’২৪) একই দিনে মানববন্ধন,বিক্ষোভ-সমাবেশের আয়োজন করে সংঘর্ষে জড়ান দু’পক্ষ। তারা দেশীয় অস্ত্রসহ চাপাতি ও পাইপ, ইটপাটকেল নিয়ে বাঘা উপজেলা চত্বর এলাকায় সংঘর্ষে জড়ান। এ সময় ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনাও ঘটে। দু’পক্ষের সংঘর্ষ চলাকালে আহত হন আশরাফুল ইসলাম বাবুল,আড়ানি ইউপি চেয়ারম্যানসহ তাদের পক্ষের নেতা-কর্মী। অপর পক্ষের পৌর মেয়র আক্কাছ আলী,সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ও জাতীয় সমাজ তান্ত্রিক দল (জাসদ ইনু)’র কেন্দ্রীয় কার্যকরি কমিটির সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা শফিউর রহমান শফি, পথচারি,পুলিশ -সংবাদকর্মীসহ তাদের পক্ষের লোকজন আহত হন। গুরুতর আহত আশরাফুল ইসলাম বাবুল ও রফিকুল ইসলামকে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। এর মধ্যে আশরাফুল ইসলাম (বাবুল) কে আইসিইউতে ভর্তি করা হয়।

উল্লেখ্য, বাঘা পৌরসভার মেয়র আক্কাছ আলীর সীমাহীন দুর্নীতি, স্বজন প্রীতি, স্বেচ্ছাচারিতা ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে মানববন্ধন কর্মসূচির আয়োজন করে বাঘা উপজেলা আওয়ামীলীগ। এতে অংশ নেন, আশরাফুল ইসলাম বাবুল, উপজেলা ভোটে পরাজিত প্রার্থী ও জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি রোকনুজ্জামান,পৌর আ’লীগের সভাপতি আব্দুল কুদ্দুস সরকার,সাধারন সম্পাদক মামুন হোসেন,উপজেলা আ’লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ওয়াহিদ সাদিক কবীর,উপজেলা যুবলীগের যুগ্ন সাধারন সম্পাদক শাহিনুর রহমানসহ তাদের সমর্থকরা।

একই দিনে উপজেলা সচেতন নাগরিকদের ব্যানারে, বাঘা সাব রেজিস্ট্রার অফিসের কতিপয় ব্যক্তি দলিল লেখক সমিতির নামে ক্রেতার কাছে জোর পূর্বক অতিরিক্ত টাকা আদায়ের প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশের আয়োজন করে। এতে সমর্থন জানিয়ে কর্মসূচিতে অংশ নেন,পৌর মেয়র আক্কাছ আলী, পাকুড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান ও জেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মেরাজুল ইসলাম, উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ও জাতীয় সমাজ তান্ত্রিক দল (জাসদ ইনু)’র কেন্দ্রীয় কার্যকরি কমিটির সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা শফিউর রহমান শফি,উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল মোকাদ্দেস,দলিল লেখক জহুরুল ইসলামসহ তাদের সমর্থকরা।

বাঘা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিনুল ইসলাম জানান,আহত আশরাফুল ইসলাম বাবুল পক্ষের- শাহিনুর রহমান পিন্টু বাদি হয়ে বাঘা পৌর মেয়র আক্কাছ আলীকে প্রধান আসামী করে দ্রুত বিচার আইনে মামলা দায়ের করেছেন। এজাহার নামীয় ৪৬ জনসহ অজ্ঞাত ২০০/৩০০ জনকে আসামী করা হয়েছে। এই মামলায় -বাঘা উপজেলার পাকুড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান ও জেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মেরাজুল ইসলাম,খায়েরহাট গ্রামের বিশিষ্ট ঠিকাদার শাজামাল সরকার লিটন,কলিগ্রামের মারুফ হাসান, মিলিকবাঘা গ্রামের তরঙ্গ হোসেন, নাছির উদ্দিন,বানিয়াপাড়া গ্রামের মতিউর রহমান, চকছাতারি গ্রামের গোলাম মোস্তফাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তারা এমপি বিরোধী পক্ষের-পৌর মেয়র ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের সমর্থক বলে জানা গেছে। বাদি শাহিনুর রহমান পিন্টু উপজেলা যুবলীগের যুগ্ন সাধারন সম্পাদক ও এমপি পক্ষের লোক।

পদ্মাটাইমস ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
topউপরে