ইউক্রেনের অস্তিত্ব হুমকির মুখে, হুঁশিয়ারি যুক্তরাষ্ট্রের

প্রকাশিত: মার্চ ২০, ২০২৪; সময়: ১০:৫৯ পূর্বাহ্ণ |
ইউক্রেনের অস্তিত্ব হুমকির মুখে, হুঁশিয়ারি যুক্তরাষ্ট্রের

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : ইউক্রেনের টিকে থাকা বা অস্তিত্ব হুমকির মুখে রয়েছে বলে সতর্ক করে দিয়েছেন মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন। এমনকি আমেরিকার নিরাপত্তা হুমকির মুখে রয়েছে বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি।

বুধবার (২০ মার্চ) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে বার্তাসংস্থা রয়টার্স।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন মঙ্গলবার সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, ইউক্রেনের অস্তিত্ব হুমকির মুখে রয়েছে। একইসঙ্গে তিনি মিত্রদের বোঝাতে চেয়েছেন, যুক্তরাষ্ট্র কিয়েভের প্রতি প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

তিনি এমন এক সময়ে এই মন্তব্য করলেন যখন ওয়াশিংটনের কাছে ইউক্রেনের বাহিনীকে অস্ত্র সহায়তা দেওয়ার জন্য অর্থের অভাব রয়েছে।

মূলত ইউক্রেনের জন্য আরও ৬০ বিলিয়ন ডলার সরবরাহ করবে এমন একটি বিলের ওপর ভোট ডাকতে অস্বীকার করছেন রিপাবলিকান হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভের স্পিকার মাইক জনসন এবং এই পরিস্থিতিতে দুই বছরেরও বেশি সময় ধরে রাশিয়ান বাহিনীর সাথে লড়াই চালিয়ে যাওয়া কিয়েভকে সহায়তা পাঠানোর উপায় খুঁজছে হোয়াইট হাউস।

রয়টার্স বলছে, ইউক্রেনকে সমর্থনকারী প্রায় ৫০টি মিত্র দেশের অংশগ্রহণে জার্মানির রামস্টেইন বিমান ঘাঁটিতে অনুষ্ঠিত ইউক্রেন প্রতিরক্ষা কন্টাক্ট গ্রুপ (ইউডিসিজি) নামে পরিচিত একটি মাসিক বৈঠকের নেতৃত্ব দিচ্ছেন অস্টিন।

বৈঠকের পর এক সংবাদ সম্মেলনে অস্টিন বলেন, ‘আজ ইউক্রেনের অস্তিত্ব হুমকির মুখে এবং আমেরিকার নিরাপত্তা ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘মার্কিন নিরাপত্তা সহায়তা এবং গোলাবারুদ সরবরাহ সচল রাখার জন্য আমি আজকে এখানে এসেছি। এবং এটি ইউক্রেনের জন্য টিকে থাকা এবং তাদের সার্বভৌমত্ব টিকিয়ে রাখার বিষয় এবং একইসঙ্গে এটি আমেরিকার জন্য সম্মান ও নিরাপত্তার বিষয়।’

অবশ্য ওয়াশিংটন কীভাবে অতিরিক্ত তহবিল ছাড়া ইউক্রেনকে সহায়তা করবে তা বলেননি অস্টিন।

কর্মকর্তারা বলছেন, সহায়তার জন্য তহবিলের অভাব ইতোমধ্যেই ইউক্রেনের যুদ্ধে প্রভাব ফেলছে। সেখানে রাশিয়ান সৈন্যরা অগ্রসর হচ্ছে এবং ইউক্রেনীয় বাহিনীকে দুষ্প্রাপ্য সম্পদ ব্যবহার ও পরিচালনা করতে হচ্ছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক মার্কিন প্রতিরক্ষা কর্মকর্তা বলেন, ‘আমি মনে করি আমাদের মিত্ররা আমাদের তহবিল পরিস্থিতি সম্পর্কে এবং ইউক্রেনীয়রা অন্যের চেয়েও বেশি সচেতন, কারণ ঘাটতির কারণে আমরা তাদের সামরিক সরঞ্জাম সরবরাহ করতে পারছি না।’

এদিকে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি মঙ্গলবার মিত্রদের কাছে আরও আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা সরবরাহের আবেদন জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, রাশিয়া কেবল এই মাসে আক্রমণে ১৩০টি ক্ষেপণাস্ত্র, ৩২০টিরও বেশি আক্রমণকারী ড্রোন এবং প্রায় ৯০০টি গাইডেড বোমা নিক্ষেপ করেছে।

পরে রাতের ভিডিও ভাষণে জেলেনস্কি বলেন, আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাই ইউক্রেনের কাছে এখন প্রধান গুরুত্ব হিসেবে রয়ে গেছে। একইসঙ্গে অংশগ্রহণকারীদের তাদের প্রচেষ্টার জন্য তিনি ধন্যবাদও জানিয়েছেন, ‘যাতে তাদের অগ্রাধিকারটি যথাযথভাবে পূরণ করা হয়’।

এদিকে ইউক্রেনের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রুস্তেম উমেরভ টেলিগ্রামে বলেছেন, (জার্মানিতে সম্মেলনে) অংশগ্রহণকারীরা ‘ইউক্রেনকে সাহায্য করার জন্য তাদের ঐক্য এবং সংকল্প প্রদর্শন করেছে। আমাদের বাহিনীর গোলাবারুদের খুবই প্রয়োজন। গোলাবারুদ সরবরাহ করা হবে!’

এর আগে গত সপ্তাহে রাশিয়ার আগ্রাসন মোকাবিলায় যুদ্ধবিধ্বস্ত ইউক্রেনে আবারও বিপুল অংকের অস্ত্র সহায়তা প্যাকেজ পাঠানোর ঘোষণা দেয় যুক্তরাষ্ট্র। নতুন এই সহায়তা প্যাকেজের পরিমাণ ৩০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার।

এই সহায়তা প্যাকেজের অধীনে গোলাবারুদ, রকেট এবং বিমান বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্রের মতো অস্ত্রও ইউক্রেনে পাঠানো হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
পদ্মাটাইমস ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
topউপরে