নওগাঁতে এআই এবং ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের পথিকৃৎ

প্রকাশিত: জুন ২৬, ২০২৪; সময়: ৮:০৭ অপরাহ্ণ |
নওগাঁতে এআই এবং ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের পথিকৃৎ

নিজস্ব প্রতিবেদক, নওগাঁ : নওগাঁ জেলার হৃদয়ে, ডিগ্রীর মোড়ে অবস্থিত সোনার তরী আইটি একাডেমী প্রযুক্তি শিক্ষার ক্ষেত্রে নতুন মাইলফলক স্থাপন করেছে। ২০২৪ সালের মার্চ মাসে যাত্রা শুরু করা এই প্রতিষ্ঠানটি শহরের প্রথম ও একমাত্র আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স (এআই) প্রশিক্ষণ কেন্দ্র হিসেবে দ্রুত খ্যাতি অর্জন করেছে।

সোনার তরী শুধু এআই-তেই সীমাবদ্ধ নয়; এটি একটি বহুমুখী প্রযুক্তি শিক্ষার কেন্দ্রবিন্দু। একাডেমী এআই ব্যবহার, প্রফেশনাল কর্মক্ষেত্রে এর প্রয়োগ, গ্রাফিক্স ও লোগো ডিজাইন, এনিমেশন, বেসিক কম্পিউটার, প্রফেশনাল ডিজিটাল মার্কেটিং এবং শিশুদের জন্য বিশেষ কম্পিউটার কোর্স প্রদান করছে। এই বৈচিত্র্যময় কোর্স কাঠামো স্থানীয় যুবসমাজকে আধুনিক প্রযুক্তির সাথে সামঞ্জস্য রেখে নিজেদের দক্ষতা উন্নয়নের অনন্য সুযোগ প্রদান করছে।

প্রতিষ্ঠানটির মূল লক্ষ্য হলো নওগাঁসহ সমগ্র বাংলাদেশে দক্ষ জনবল গড়ে তোলা এবং প্রযুক্তির মাধ্যমে শিক্ষা ও পেশাগত জীবনে প্রতিযোগিতামূলক সুবিধা সৃষ্টি করা। এই উচ্চাভিলাষী লক্ষ্য বাস্তবায়নে সোনার তরী আইটি একাডেমী গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের আইসিটি অধিদপ্তর, নওগাঁ শাখার সরাসরি তত্ত্বাবধানে তাদের কোর্সসমূহ পরিচালনা করছে। এই সরকারি স্বীকৃতি নওগাঁতে একমাত্র সোনার তরী আইটি একাডেমীই অর্জন করেছে, যা প্রতিষ্ঠানটির গুণগত মান ও বিশ্বাসযোগ্যতার প্রমাণ বহন করে।

একাডেমীর সাফল্যের জ্বলন্ত উদাহরণ হিসেবে রয়েছে এর বেশ কিছু প্রাক্তন শিক্ষার্থীর অর্জন। তারা ফ্রিল্যান্সিং এর মাধ্যমে ঘরে বসেই আয় করছেন, আবার কেউ কেউ ডিজিটাল মার্কেটিং কৌশল নিজেদের ব্যবসায় প্রয়োগ করে সফল উদ্যোক্তা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হচ্ছেন। এসব সাফল্য গল্প নতুন শিক্ষার্থীদের অনুপ্রেরণার উৎস হিসেবে কাজ করছে।

সোনার তরী আইটি একাডেমীর আরেকটি উল্লেখযোগ্য দিক হলো এর অভিজ্ঞ শিক্ষক মণ্ডলী। এই শিক্ষকরা দেশের সেরা সরকারি ও বেসরকারি প্রকল্পে লীড ট্রেইনার হিসেবে কাজ করার অভিজ্ঞতা সম্পন্ন। তাদের এই বহুমুখী অভিজ্ঞতা শিক্ষার্থীদের জন্য একটি বিশাল সম্পদ, যা তাদেরকে শুধু তাত্ত্বিক জ্ঞান নয়, বরং বাস্তব জগতের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলার জন্যও প্রস্তুত করে তুলছে।

নওগাঁর এই প্রযুক্তি শিক্ষার অগ্রদূত প্রতিষ্ঠান, সোনার তরী আইটি একাডেমী, কেবল স্থানীয় যুবসমাজকে দক্ষ করে তুলছে না, পাশাপাশি সমগ্র অঞ্চলের ডিজিটাল পরিবর্তনের ইঞ্জিন হিসেবেও কাজ করছে। এর মাধ্যমে নওগাঁ জেলা ক্রমশ একটি প্রযুক্তি-বান্ধব ও দক্ষতা-ভিত্তিক অর্থনীতির দিকে এগিয়ে যাচ্ছে, যা ভবিষ্যতে সমগ্র বাংলাদেশের জন্য একটি অনুকরণীয় মডেল হিসেবে কাজ করতে পারে।

সোনার তরীর সাফল্যের জ্বলন্ত উদাহরণ হিসেবে রয়েছে এর বেশ কিছু প্রাক্তন শিক্ষার্থীর অর্জন যারা অতীতের বিভিন্ন সরকারী এবং বেসরকারী প্রজেক্টের ছাত্র-ছাত্রী ছিলেন। তারা ফ্রিল্যান্সিং এর মাধ্যমে ঘরে বসেই আয় করছেন, আবার কেউ কেউ ডিজিটাল মার্কেটিং কৌশল নিজেদের ব্যবসায় প্রয়োগ করে সফল উদ্যোক্তা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হচ্ছেন। এসব সাফল্য গল্প নতুন শিক্ষার্থীদের অনুপ্রেরণার উৎস হিসেবে কাজ করছে।

 

পদ্মাটাইমস ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
topউপরে