রাজশাহীর দৃষ্টিনন্দন বায়তুল আমিন জামে মসজিদে ঈদের জামাত সকাল ৮টায়

প্রকাশিত: জুন ১৬, ২০২৪; সময়: ১২:০৫ অপরাহ্ণ |
রাজশাহীর দৃষ্টিনন্দন বায়তুল আমিন জামে মসজিদে ঈদের জামাত সকাল ৮টায়

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহী মহানগরীর হড়গ্রাম মুন্সিপাড়া এলাকায় মদিনার আদলে তৈরী বায়তুল আমিন জামে মসজিদ কমপ্লেক্স এ ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৮টায়। মুফতি মো: শহিদুল ইসলাম হাবিবি পবিত্র ঈদ-উল-আযহার নামাজ ও দোয়া পরিচালনা করবেন।

মসজিদটির প্রতিষ্ঠাতা ও পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক বিশিষ্ট সমাজসেবক এবং মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আজিজুল আলম বেন্টু বলেন, এই অঞ্চলের সকল ধর্মপ্রাণ মুসল্লিদের কথা চিন্তা ভাবনা করে ঈদের নামাজের আয়োজন করা হয়েছে। বর্তমান সময়ে রাজশাহীর আবহাওয়া খুব গরম। বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। সেক্ষেত্রে এই মসজিদ কমপ্লেক্সে মুসল্লিরা স্বাচ্ছন্দে নামাজ আদায় করতে পারবে। আশা করি অত্র এলাকার সকল ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা সকল ভেদাভেদ ভুলে ঈদ-উল-আযহার মর্মবানী অন্তরে ধারণ করে ঈদের নামাজ আদায় করবেন।

তিনি বলেন, বাইতুল আমিন জামে মসজিদে ৮০০ পুরুষ একসাথে জামাতে সালাত আদায় করতে পারেন। মসজিদের বাইরে আরও অন্তত ২০০ জনের সালাত আদায়ের ব্যবস্থা রয়েছে। এছাড়াও মসজিদ কমপ্লেক্সে নারীদের জন্য আলাদা জামাতে সালাত আদায়ের ব্যবস্থা আছে। যেখানে একসাথে প্রায় ৪০০ নারী সালাত আদায় করতে পারবেন।

এদিকে, রাজশাহীতে এবার ঈদ-উল-আজহার প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে হযরত শাহ মখদুম (রহঃ) কেন্দ্রীয় ঈদগাহে সকাল সাড়ে ৭টায়। তবে বৃষ্টি হলে বা আবহাওয়া প্রতিকূল থাকলে একই সময় ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে হযরত শাহ মখদুম (রহ.) দরগা জামে মসজিদে। আর সেই ক্ষেত্রে মানুষ বেশি হলে ৪৫ মিনিটের ব্যবধানে দরগা মসজিদে পর পর তিনটি ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। হযরত শাহ মখদুম (রহঃ) দরগা স্টেটের তত্বাবধায়ক মো. মোস্তাফিজুর রহমান এ তথ্য জানিয়েছেন।

আর দরগা মসজিদে ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হলে প্রথমটিতে ইয়াকুব আলী এবং দ্বিতীয়টিতে মোহাম্মদ মুহিব্বুল্লাহ ইমামতি করবেন। শনিবার ঈদ জামাত নিয়ে রাজশাহী জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে সভায় এই সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করা হয়েছে বলেও তিনি জানান।

এদিকে, রাজশাহীতে ঈদের দ্বিতীয় বৃহত্তম প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৭টায় ও সকাল ৮টায় মহানগর (টিকাপাড়া) ঈদগাহে। এখানে ইমামতি করবেন মোহাম্মদপুর টিকাপাড়া জামে মসজিদের পেশ ইমাম মাওলানা মোহাম্মদ মতিউর রহমান। এখানে দ্বিতীয় জামাতটি অনুষ্ঠিত হবে ৮টায়৷ আর বৃষ্টি হলে একই সময়ে পাশেই থাকা টিকাপাড়া মোহাম্মপুর জামে মসজিদ কমপ্লেক্সেই পরপর ঈদের দুইটি জামাত অনুষ্ঠিত হবে।

আর সকাল ৮টায় মহানগরীর তৃতীয় বৃহত্তম ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে বড় মসজিদ সংলগ্ন সাহেব বাজার জিরোপয়েন্টে (বড় রাস্তায়)। এখানে ইমামতি করবেন, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের অধ্যাপক মাওলানা তৈয়বুর রহমান নিজামী। তবে আবহাওয়া খারাপ থাকলে বা বৃষ্টি হলে একই সময়ে বড় মসজিদ কমপ্লেক্সেই ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে।

এছাড়া রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে সকাল ৮টায় এবং রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় জামে মসজিদে ঈদ-উল-ফিতরের জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৭টায়।

ইসলামিক ফাউন্ডেশন রাজশাহী বিভাগীয় কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মুহাম্মদ মুজাহিদুল ইসলাম জানান, সুুষ্ঠুভাবে ঈদুল আজহার প্রধান জামাত আয়োজনে এরই মধ্যে রাজশাহী জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে বলে দেওয়া হয়েছে- সংশ্লিষ্ট মসজিদ কমিটিই বরাবরের মত আলোচনা করে নিজ নিজ ঈদগাহের ঈদ জামাতের সময়সূচি নির্ধারণ করবেন।

 

পদ্মাটাইমস ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
topউপরে